বিশ্ব সংগীত দিবসে শিল্পীদের মিলনমেলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২২ জুন ২০১৯, ১১:৩৯

বিশ্ব সংগীত দিবসে ঢাকায় শিল্পকলা একাডেমিতে জমে উঠেছিল শিল্পীদের মিলনমেলা । বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালা চলে রাত পর্যন্ত।

দিবসটির কার্যক্রম শুরু হয় শিল্পীদের শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে। একাডেমি প্রাঙ্গণ থেকে শিল্পীদের বর্ণঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে সেগুনবাগিচার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় একাডেমির চিত্রশালা ভবনে সামনে এসে শেষ হয়। এতে প্রবীণ, তরুণ, নবীন শিল্পীসহ রাজধানীর সংস্কৃতসেবি এবং একাডেমির কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা অংশ নেন।

পরে শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালার লবিতে একাডেমির সংগীত শিল্পীদের অর্কেস্ট্রা পরিবেশিত হয়। এর পর শিল্পী ফুয়াদ নাসের বাবু এর পরিচালনায় বাংলাদেশ মিউজিশিয়ানস ফাউন্ডেশন সমবেত যন্ত্রসংগীত পরিবেশন করে। তৃবীয় পর্বে ছিলো আলোচনা সভা। গতকাল সন্ধ্যায় একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা ভবনের সামনের মাঠে শুরু হয়ে রাত পর্যন্ত চলে এ অনুষ্ঠানমালা ।

শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন , বাঙালি সংস্কৃতিতে সংগীত জগতটা হচ্ছে বিশ্বের অতি পুরনো ও ঐহিত্যবাহী। এটা বিশ্বের অনেক দেশই জানে। বিশ্ব সংগীত দিবসটি এ জন্যই আমাদের জন্য অনেক আনন্দের। ব্রিটিশ আমল থেকেই আমাদের শিল্পী ও সংস্কৃতিসেবীরা বাংলা গান ও সংগীত জগতকে সমৃদ্ধ করেছেন। তিনি তাদের শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, আমরা হচ্ছি সংগীতের মহান সৃজনশীলতার উত্তরসূরি। এই জগতকে আরো বেগবান করতে হবে।

সভাপতির ভাষণে লিয়াকত আলী লাকী বলেন , মহান স্বাধীনতা সংগ্রাম থেকে শুরু করে আমাদের শিল্পীরা ব্যাপক অবদান রেখেছেন সংগীতে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময়কার গানগৃুলো সারাবিশ্বে সমাদৃত হচ্ছে। একাডেমি এই সব গান সংরক্ষণ করছে এবং সব পর্যায়ের শিল্পীদের নিয়ে একাডেমির সংগীত বিভাগ সারাবছর ধরেই নানা অনুষ্ঠান প্রযোজনা করছে।

অনুষ্ঠানের বিশেষ পর্ব ছিল ভিন্ন ভাষার গান। উর্দু, আরবি, চাইনিজ, নেপালি ,রাশিয়ান, ভারতীয়, জাপানিজ, ইংলিশ ও স্প্যানিশ ভাষায় বিভিন্ন শিল্পীরা সমেবেত সংগীত পরিবেশন করেন। 

এ ছাড়া দেশাত্ববোধক, মুক্তিযুদ্ধের গান, জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গান, লালন ও হাছন রাজার গান পরিবেশনে বিভিন্ন দলের শিল্পীরা অংশ নেন। এতে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি শিশু দল, ঢাকা সাংস্কৃতিক দল, শিল্পকলা একাডেমির সংগীত শিল্পীবৃন্দ, উত্তরায়ন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগের শিল্পীরা অংশ নেন।
খবর বাসস

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ