স্মরণ সভায় বক্তারা

অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়তে ড. রণজিৎ বিশ্বাস ছিলেন আপসহীন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ জুন ২০১৯, ১৩:৫৫

সাবেক সচিব ও লেখক ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস দেশ সমাজ এবং মানুষের জন্য অন্তর দিয়ে কাজ করে গেছেন। অসম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার কাজে ছিলেন আপসহীন। তার অকাল মৃত্যুতে সাহিত্য-সংস্কৃতি জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

প্রয়াত ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস স্বরণে বাংলা একাডেমি আয়োজিত এক স্মরণ সভায় বক্তারা এ অভিমত রাখেন। 

একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে গতকাল আয়োজিত স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে ড. বিশ্বাস স্বরণে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান বলেন, আমি নিজে ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাসের ক্রিকেটবিষয়ক লেখার ভক্ত ছিলাম। তিনি কথার মধ্য দিয়ে খেলা দৃষ্টিগ্রাহ্য করে তুলতেন। তিনি রঙ্গ ও ব্যঙ্গ রচনার মধ্য দিয়ে আমাদের সমাজের অসঙ্গতি তুলে ধরেছেন।

স্বাগত বক্তব্যে হাবীবুল্লাহ সিরাজী বলেন, ড. রণজিৎ বিশ্বাস সত্তর দশকের প্রথমার্ধে লেখালেখি শুরু করেন। তিনি সমাজের বিভিন্ন অসঙ্গতিকে সরল গদ্যে উপস্থাপন করেছেন। তিনি ভাষা সচেতন মানুষ ছিলেন। বাংলা ও ইংরেজি ভাষার ব্যবহারিক শুদ্ধাশুদ্ধি নিয়ে লেখালেখি করেছেন। তাঁর লেখায় বারবার ফিরে এসেছে মুক্তিযুদ্ধের কথা।

একক বক্তৃতায় হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন বলেন, যারা প্রথম ও শেষ বিবেচনায় মানুষকে মানুষ বিবেচনা করেন রণজিৎ কুমার বিশ্বাস তাঁদের জন্য লিখেছেন বলে জানিয়েছেন। এখানেই আমরা রণজিৎ বিশ্বাসের বিশেষত্ব বুঝতে পারি। মানুষের পক্ষে থাকা মানে সত্য ও সুন্দরের সঙ্গে থেকে যুদ্ধ করে যাওয়া ড. রণজিৎ সেটা কলম দিয়ে করেছেন। তিনি আমাদের ভাষা ও আচরণে শুদ্ধতার উপর জোর দিয়েছেন। তার অকাল মৃত্যু আমাদের সাহিত্য সংস্কৃতির জন্য অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।
খবর বাসস

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ