ভারতের সাথে নাড়ির সম্পর্ক বাংলাদেশের : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০২০, ১৬:১৪

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারতের সাথে মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকেই মধুর সম্পর্ক, নাড়ির সম্পর্ক বাংলাদেশের। এই সম্পর্ক ছিন্ন হবার নয়। 

আজ শনিবার মুজিবনগর স্মৃতিসৌধ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় কালে এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি প্রতিবেশি দেশের সাথে সম্পর্কের বিষয়ে বলেন, বাংলাদেশের বিজয় মানে ভারতের বিজয়, বাংলাদেশের উন্নয়ন মানেই ভারতের উন্নয়ন।

তিনি আরো বলেন, ভারতের সাথে ইতোমধ্যে পানি চুক্তিসহ বিভিন্ন চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। আমাদের আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি বিশ্বাস রাখুন অনেক উন্নয়ন দেখতে পাবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পাঁচ খুনি এখনও বেঁচে আছে। এরমধ্যে দুইজনের সন্ধান মিলেছে। একজন আমেরিকা ও একজন কানাডা আছে। একজনকে এ বছরই দেশে আনার জোর প্রক্রিয়া চলছে।

মন্ত্রী বলেন, ‘করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিষ্কারে ভারত ও পাকিস্তান দু’টি দেশই অন্য দেশের সঙ্গে যৌথভাবে গবেষণামূলক কাজ শুরু করেছে। সেখানে আমরা কারও সঙ্গে কাজ শুরু করতে পারলাম না। এটা দুঃখজনক। আমরা ভ্যাকসিন পেতে ইউরোপে অনেক টাকা দিয়ে রেখেছি।’

তিনি বলেন, ‘চীন বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দেবে। চীন প্রায় ৮ হাজারেরও বেশি পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধা দিচ্ছে। এটা নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কে কোনো বিতর্ক তৈরি হয়নি। এটাকে নিয়ে কেউ কেউ রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। ভারতের সঙ্গে সুমদ্র, সীমান্ত, নিরাপত্তাসহ আমাদের বড় ধরনের সমস্যা দূর হয়েছে। ছোট কিছু সমস্যা ঝুলে আছে। ঠিক হয়ে যাবে। ভারতের সঙ্গে আমাদের রক্তের সম্পর্ক। আর চীনের সঙ্গে আমাদের অর্থনৈতিক সম্পর্ক। ভারত-চীনের গণ্ডগোল নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন নয়।’

এর আগে, গতকাল শুক্রবার রাতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেহেরপুর আসেন।  আজ শনিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে তিনি সড়ক পথে মুজিবনগর পৌঁছান। এরপরই তিনি আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক ড. মোহম্মদ মুনসুর আলম খান, পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলি, মেহেরপুর-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মো. জয়নাল আবেদিন, মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উসমান গনি, মেহেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম শাহিনসহ আওয়ামী লীগের দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী মুজিবনগর কমপ্লেক্স পরিদর্শন করেন। স্মৃতিসৌধ পরীদর্শনকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্ত্রী সেলিনা মোমেনও উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ