ডাকসুতে হামলা, ফের তদন্তের সময় বৃদ্ধি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ১২:৪১

তৃতীয়বারের মতো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভবনে হামলার ঘটনায় তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার তারিখ পেছানো হয়েছে।

এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ডাকসুর সহসভাপতি নুরুল হক নুর এবং বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক ফারুক হাসান।

এর আগে ২০১৮ সালের ২২ ডিসেম্বর ডাকসু সহসভাপতির কক্ষে হামলা চালায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এতে অন্তত ৩০ শিক্ষার্থী আহত হয়। পরে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে বিচারের দাবি জানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এদিকে হামলার পরে ডাকসু ভবনের সিসিটিভি ফুটেজ মুছে ফেলায় হামলাকারীদের চিহ্নিত করতে বিপাকে পড়তে হয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে।

পরবর্তীকালে ২৩ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক আবু মো. দেলোয়ার হোসেনকে প্রধান করে ছয় সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে ৬ কার্যদিবসের মধ্যে (১ জানুয়ারি) তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার নির্দেশ দেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

কিন্তু কমিটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে পারেনি। পরে দ্বিতীয় বারের মতো ফের ১০ কার্যদিবস সময় বৃদ্ধি করা হয়। তবুও নির্ধারিত সময়ে (১৫ জানুয়ারি) তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন জমা দিতে পারেনি। পরবর্তীতে তদন্ত কমিটিকে তৃতীয় বারের মতো আরও ১০ কার্যদিবস সময় দিয়েছেন উপাচার্য।

এদিকে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তদন্তের কাজ শেষ না হওয়ায় বার বার সময় বাড়ানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন  তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন।

এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ভিপি নুর বলেন, ‘হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জড়িত। তাই কমিটি প্রতিবেদন নিয়ে কালক্ষেপণ করছে।’

এ বিষয়ে ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক ফারুক বলেন, ‘দীর্ঘ ৯ বার ডাকসুর সহসভাপতির ওপর হামলা করা হয়েছে। তবে কোনো হামলারই বিচার হয়নি। ডাকসুতে হামলার ঘটনার পর বেশ কিছু ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। চাইলেই হামলাকারীদের সহজে চিহ্নিত করা যায়। কিন্তু তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশে কালক্ষেপণ বিচার না পাওয়ার দিকেই ইঙ্গিত দেয়।’

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ