স্বতন্ত ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণ ঘোষণার দাবিতে আল্টিমেটাম

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ জুলাই ২০২০, ২১:১৫

বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত সকল স্বতন্ত ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের ঘোষণার দাবীতে আল্টিমেটাম দিয়েছেন বাংলাদেশ স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি। আগামী ৯ আগস্টের মধ্যে জাতীয়করণের ঘোষণা না আসলে দেশের সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদের নিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচিসহ কঠোর কর্মসূচি পালন করার হুশিয়ারী দিয়েছেন সংগঠনটির নেতারা। আজ বুধবার (১ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন থেকে এ ঘোষণা আসে।

জানা গেছে, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি হাফেজ মাওঃ কাজী ফয়জুর রহমান। এসময় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের মহাসচিব কাজী মোখলেছুর রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উপদেষ্টা মুফতি মাসুম বিল্লাহ নাফেয়ী, সিনিয়র সহ-সহভাপতি মাওঃ শাহজাহান, এবিএম আব্দুল কুদ্দুস, সহ-সভাপতি আবু মুসা ভুঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব মাহমুদুল হাসান ও মোঃ শামসুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক বশির উল্লাহ আতাহারী প্রমুখ।

কর্মসূচি থেকে স্বতন্ত ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের ঘোষণাসহ ৭টি দাবি জানানো হয়। এসব দাবির মধ্যে রয়েছে-

১) প্রাথমিকের ন্যায় সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা মুজিববর্ষে উপলক্ষ্যে মহাসমাবেশের মাধ্যমে জাতীয়করণের ঘোষণা

২) কোডবিহীন মাদ্রাসাগুলো বোর্ড কর্তৃক কোড নম্বর অন্তর্ভূক্ত করণ

৩) স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করে আলিম শিক্ষক একজনের পরিবর্তে এইচএসসি পাশ একজন অন্তর্ভুক্তকরণ

৪) প্রাথমিকের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার অফিস সহায়ক নিয়োগ

৫) প্রাথমিকের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষকদের পিটিআই ট্রেনিং এর ব্যবস্থাকরণ

৬) প্রাথমিকের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার আসবাবপত্রসহ ভবন নির্মাণ

৭) প্রাথমিকের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার স্থায়ী রেজিষ্ট্রেশনের ব্যবস্থাকরণ

কর্মসূচি থেকে জাতীয়করণের ঘোষণা এসব দাবি আগামী ৯ আগস্টের মধ্যে জাতীয়করণের ঘোষণা না আসলে দেশের সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকদের নিয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে লাগাতার অবস্থান কর্মসূচিসহ কঠোর কর্মসূচি পালন করার হুশিয়ারী দেয়া হয়। এসব দাবিতে প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হবে বলেও জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ইবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষরা কোন বেতন ভাতা পায় না তবুও তারা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ন্যায় শিক্ষকতা চালিয়ে যাচ্ছে। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ার থেকে ১৬ জানুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষক সমিতি অবস্থান ঘর্মঘট ও অনশন চলকালীন সময়ে সরকারের নির্দেশে সচিব মহোদয় আন্দোনরত স্থলে এসে শিক্ষকদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেন। কিন্তু তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি।

তারা বলেন, ১৫১৯টি ইবতেদায়ী মাদরাসার শিক্ষকগণ সর্বসাকুল্যে প্রধান শিক্ষক ২৫০০ টাকা, সহকারী শিক্ষক ২৩০০ টাকা ভাতা পায় বাকি রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত মাদরাসাগুলোর শিক্ষকগণ ৩৬ ব্ছর যাবৎ বেতন ভাতা হতে বঞ্চিত। যা এই দ্রব্যমূলের বাজারে অমানবিক, শিক্ষকদের অবমাননা ছাড়া কিছুই না। চলমান করোনার প্রভাবে সারা দেশে বেতন বঞ্চিত কর্মরত স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসার শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ