ওসি শেখ কামাল হোসেনের উদ্যোগে বদলে গেছে খানসামা থানার চিত্র

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪:৫৪

ওসি শেখ কামাল হোসেন এর সৃজনশীলতায় বদলে গেছে দিনাজপুরের শান্তিপূর্ণ খানসামা থানা’র চিত্র। পুলিশের আচরণ যেমন পাল্টেছে, তেমন থানার চিত্রও বদলেছে। এতে আগের তুলনায় থানায় সেবার মানও বেড়েছে। থানার মূল ভবনে রং তুলির আঁচর আর থানা চত্বরে বাহারি ফুল-ফল গাছ আর পতিত জমিতে সবজি ক্ষেত মিলে তৈরী হয়েছে অপরুপ সৌন্দর্য্য। এই স্থাপনার সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও দৃষ্টিনন্দন গড়তে এবং সহজেই মানুষকে সেবা দিতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে খানসামা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ কামাল হোসেন।

ওসি শেখ কামাল হোসেন খানসামা থানায় যোগদানের প্রায় ১০ মাসের মধ্যেই আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার) ও জেলা পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন বিপিএম, পিপিএম (বার) এর নির্দেশনায় সৃজনশীল ও যুগোপযোগী পরিকল্পনার ফলে খানসামা থানা ও পুলিশ হয়ে উঠেছে এই উপজেলার মানুষের আস্থার ঠিকানা।

ব্যক্তি হিসেবেও শেখ কামাল হোসেন সদালাপী ও মিষ্টভাষী। কখনোই নিম্ন পদস্থ কাউকে গালিগালাজ করেন না।তার আচরণ ও কাজকর্মে আধুনিক পুলিশের ছোঁয়া দেখা যায়। সহকর্মীরাও তার আচরণে সন্তুষ্ট।

তিনি এই থানায় যোগদানের পর থেকেই মানবিক ও জনবান্ধব পুলিশ হিসেবে প্রানঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ সচেতনতা সৃষ্টি, সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ও খাদ্য সহায়তা প্রদান করেন। তবে এসব মানবিক দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে ওসি শেখ কামাল হোসেন কখনও ভুলে যায় নাই তার পেশাগত দায়িত্বের কথা। যেকোনো অপরাধ দমন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা ও সরকারী নির্দেশনা বাস্তবায়নে সর্বদা তিনি সজাগ আছেন।

বিভিন্ন দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি তিনি থানাকে সাজিয়েছেন শৈল্পিক নৈপুণ্যে। তিনি থানায় ফুলের বাগান, ফলজ বাগানসহ থানার পেছনের পতিত জমিতে শীতকালীন সবজির সমারোহ গড়ে তুলে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। অনেকেই অবসরে ঘুরতে আসেন থানায়। আর এসব ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে অনেকে ফুল বাগান ও সবজি চাষে উৎসাহিত হচ্ছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, থানার মূল গেট দিয়ে প্রবেশ করতেই হরেক রকম ফুলের সমাহার দেখে মন জুড়িয়ে যাবে। একটু ভিতরে যেতেই ঢালাই দেওয়া নতুন রাস্তা তাঁর পাশেই পুলিশ সদস্যদের জন্য তৈরী করা হয়েছে আধুনিক ব্যাডমিন্টন কোর্ট। সংস্কার আর নতুন জায়নামাজে বদলে গেছে থানা মসজিদের ভিতরের চিত্র। আর থানার মূল ভবনের পিছনে পরিত্যক্ত জমিকে চাষাবাদ উপযোগী করে সেখানে প্রায় ১০০ শতাংশ জমিতে করেছেন সবজি ক্ষেত ও নানান জাতের ফলের বাগান।

এএসআই তবিবুর রহমান বলেন, নতুন ওসি স্যার আসার পর তিনি নতুন রুপে থানা চত্বরের পরিবেশ ও ফুলের বাগান গড়ে তুলেছেন। সারাদিন ডিউটি করে মনোমুগ্ধকর থানা চত্বরে আসলেই ক্লান্তি দূর হয়ে যায়।

ওসি শেখ কামাল হোসেন বলেন, কোনো চাওয়া-পাওয়ার জন্য নয় পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ভালো লাগার জায়গা থেকে কাজগুলো শুরু করেছি। মানবিক ও জনবান্ধব পুলিশ হিসেবে জনগণের পাশে দাঁড়াতে থানা পুলিশ সর্বদা কাজ করে যাচ্ছে।

এবিএন/এস.এম.রকি/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ