ena
maisha
bioMed

যৌতুকের কারণে শরীয়তপুরে গৃহবধূ খুন

শরীয়তপুর, ১৬ মে, এবিনিউজ : য়ৌতুকের দাবি মেটাতে না পারায় শরীয়তপুরে এক গৃহবধুকে হত্যা করেছে তার শশুর বাড়ির লোকেরা। গতকাল মঙ্গলবার গভীর রাতে নিহতের স্বামী ও শশুর-শাশুরী মিলে শারীরিক নির্যাতনের এক পর্যায়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে গৃহবধু খাদিজাকে। নিহতের মরদেহ ময়না তদন্তের পর হস্তান্তর করা হয়েছে তার পরিবারের কাছে। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে খাদিজার পরবিার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মাত্র ১৪ মাস আগে শরীয়তপুর সদর উপজেলার আঙ্গারিয়া ইউনিয়নের দক্ষিন ভাসানচর গ্রামের ছামাদ মৃধার ছেলে এবাদুল মৃধার সাথে বিয়ে হয় একই ইউনিয়নের চরযাদবপুর গ্রামের দরিদ্র কৃষক গোলাম মাওলা কাজীর মেয়ে খাদিজা আক্তার মধুর। বিয়ের সময় খাদিজার পরিবার সাধ্য মত নগদ টাকা, আসবাবপত্র ও কিছু স্বর্নালংকার দেন মেয়ে-জামাইকে।

বিয়ের কিছুদিন না যেতেই আরো টাকা ও মোটর সাইকেল কিনে দেয়ার জন্য শশুর বাড়ির লোকেরা চাপ দিতে থাকে খাদিজা ও তার মা বাবাকে। দরিদ্র মা বাবা মেয়ের শশুর বাড়ির লোকদের অন্যায় দাবি পূরণ করতে না পারায় নির্যাতন শুরু হয় খাদিজার ওপর। নির্যাতন সইতে না পেরে সম্প্রতি খাদিজা তার বাবার বাড়ি চলে যান। এরপর খাদিজার খাদিজার স্বামী তাকে ফিরিয়ে আনতে গেলে খাদিজার  মা বাবা যৌতুকলোভী স্বামীর কাছে খাদিজাকে দিতে অস্বীকৃতি জানান।

গত তিন দিন আগে রবিবার আর কোন অত্যাচার-নির্যাতন না করার শর্তে খাদিজার মা বাবাকে অনুরোধ করে স্থানীয় মালেক সরদারের স্ত্রী খাদিজাকে তার শশুর বাড়ি নিয়ে যায়। কিন্তু কথা রাখেনি পাষন্ড স্বামী এবাদুল মৃধা, তার মা রিজিয়া বেগম ও বাবা ছামাদ মৃধা। নতুন করে শুরু হয় শারীরিক নির্যাতন। বাবার বাড়ি থেকে যৌতুক এনে দেয়ার জন্য মারপিট চলতে থাকে রাত দিন।  

মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকে খাদিজার স্বামী, শশুর ও শাশুরী মিলে শারীরিক নির্যাতন শুরু করে খাদিজার উপর। নির্যাতনের এক পর্যায় রাত দুইটার দিকে খাদিজাকে গলা টিপে শ্বাস রোধ করে  খুন করে পাষন্ডের দল। তারা খাদিজাকে খুন করে বাড়ির সকল মালামাল এমনকি গবাদিপশু নিয়ে ভোর হওয়ার আগেই বাড়ি ছেরে পালিয়ে যায়।

স্থানীয়রা হত্যাকান্ডের কথা জানতে পেরে খবর দেয় খাদিজার পরিবারকে। সকাল ৬ টায় গিয়ে খাদিজার স্বজনরা ঘরের ভেতর লাশ দেখে পুলিশে খবর পাঠালে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন। বুধবার দুপুরে ময়না তদন্ত শেষে খাদিজার মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ বিষয়ে খাদিজার পরিবার একটি হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানিয়েছেন শরীয়তপুর সদর পালং মডেল থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান।

এবিএন/কাজী নজরুল ইসলাম/জসিম/তোহা

rupalibank
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত