দৌলতপুরে মসজিদের নির্মাণ কাজ বন্ধ হওয়ায় মুসল্লীদের ক্ষোভ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৩৫

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মসজিদ ও মাদ্রাসার জমি নিয়ে টানাপোড়েন শুরু হয়েছে। এ বিষয়ে আদালতে মামলা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে মসজিদ নির্মাণ বন্ধ থাকায় মুসল্লীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য এলাকাবাসী জেলা প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছেন।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের গোয়ালগ্রাম বাজার জামে মসজিদ নির্মাণের জন্য আব্দুল আজিজ বিশ্বাস উত্তর গোয়ালগ্রাম মৌজার ১২৪৯ খতিয়ানভুক্ত ৩০৩২ নং দাগে সড়ক সংলগ্ন ৭ শতাংশ জমি দান করেন। সম্প্রতি মসজিদ টি সম্প্রসারণের জন্য এ বছর আগে এলাকাবাসী কাজ শুরু করেন। সেই সুযোগে জমিদাতার ছেলে কামরুজ্জামান বিশ্বাস মসজিদের সম্মুখভাগের জমি দাবী করে সেখানে দোকান ঘর তৈরীর প্রস্তুতি নিলে মুসল্লীরা বাধা দেন। এবং বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়। বর্তমানে মসজিদ কমিটির দায়ের করা মিস- ০৬/২০২০ মামলাটি আদালতে বিচারাধীন আছে।

এমতাবস্থায় কামরুজ্জামান বিশ্বাস তার লোকজন নিয়ে জোর করে মসজিদের জমির পিছনে গোয়ালগ্রাম-নাটনাপাড়া ফুরকানিয়া মাদ্রাসার জমিতে মসজিদ নির্মাণ করে মসজিদের জমিটি নিজ দখলে নেবার চেষ্টা করে। ফলে, এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এলাকাবাসী ও ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণ কামরুজ্জামান বিশ্বাসের রোষানল থেকে মসজিদ ও মাদ্রাসার জমি রক্ষার জন্য জেলা প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আবেদন করেছেন।

অভিযুক্ত কামরুল ইসলাম বিশ্বাস জানান, জমিটি আমার বাবা দান করেছেন। তাই আমি দোকানঘর তৈরীর জন্য মসজিদের সামনে অংশটি দাবী করেছি মাত্র। তবে,মাদ্রাসার জমিতে মসজিদ তৈরীর চেষ্টার ব্যাপারে কোন সদুত্তর দেনননি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আফফান বলেন, ২০ বছর আগে পিতার দলিলমূলে দান করা জমি সন্তানরা দাবী করতে পারেন না। তিনি আরো বলেন, ঐ চক্রটির ষড়যন্ত্রের ফলে, ২ বছর ধরে মসজিদ পুনঃনির্মাণ করতে না পারায় মুসল্লীগণ রোদ বৃষ্টি ঝড়ের মধ্যে ইবাদত পালনে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কশিশনার (ভুমি) আফরোজ শাহীন খসরু জানান, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। দ্রুত বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

এবিএন/জহুরুল হক/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm