ভারী বর্ষণে তলিয়ে গেছে শরণখোলার তিন শতাধিক বাড়িঘর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২০ অক্টোবর ২০২১, ১৩:৪৫

বাগেরহাটের শরণখোলায় তিন দিনের ভারী বর্ষনে তলিয়ে গেছে উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজারের ৩ শতাধিক বাড়ি-ঘর। প্রবল বর্ষণে ঘর থেকে বের হতে পারছেনা মানুষ। রাস্তা-ঘাট দিয়ে  বৃষ্টির পানি গড়াচ্ছে। রায়েন্দা বাজারের অনেক দোকানপাট পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা অচল হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে খেটে খাওয়া দিনমজুর শ্রেনীর মানুষ রয়েছে চরম বিপাকে। ঘর- বাড়ি তলিয়ে যাওয়ায়  রান্না -বান্না বন্ধ হয়ে গেছে অনেক পরিবারের। বৃষ্টি আরও অব্যাহত থাকলে রোপা আমন ধান ও সবজির ক্ষেত সহ মৎস্য ঘেরের  ব্যাপক ক্ষয়- ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন চাষিরা।

এছাড়াও বেড়িবাধের মধ্যে থাকা উপজেলার বগী, দক্ষিন সাউথখালী, উত্তর সাউথখালী, সোনাতলা, রাজাপুর, বাংলাবাজার, আমড়রাগাছিয়া, খোন্তাকাটা এলাকার অনেক বাড়িঘর ও সবজির ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে।
উপজেলার বকুলতলা গ্রামের সবজি চাষী বাবুল হাওলাদার জানান, বৃষ্টির পানিতে  তার সবজির ক্ষেতে পানি উঠেছে। বৃষ্টি না থামলে এ বছরে দ্বিতীয় বারের মত তাদের ফসল নষ্ট হয়ে যাবে। চালিতাবুনিয়া গ্রামের কৃষক শরৎ মন্ডল জানান, এভাবে বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে  আমন ধানের ক্ষেত তলিয়ে যাবে এবং ব্যাপক ক্ষয়- ক্ষতি হবে। বীজ রোপনের সময় অতিবর্ষনে তাদের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিলো। বীজ পচে মাটিতে মিশে গিয়েছিলো। চালরায়েন্দা গ্রামের মৎস্য চাষী মিজানুর রহমান জোমাদ্দার জানান, নেট দিয়ে কোন মতে তার মাছের ঘের আটকিয়ে রেখেছেন এভাবে বৃষ্টি চলতে থাকলে ঘের রক্ষা করা সম্ভব হবেনা। কয়েকমাস আগেও প্রবল বর্ষনে তার মাছের ঘের থেকে মাছ বের হয়ে গিয়েছিলো।

শরনখোলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খাতুনে জান্নাত জানিয়েছেন, উপজেলার রায়েন্দা শহর রক্ষা বাধের মধ্যে থাকা অনেক বাড়িঘর পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। সাধারণ  মানুষের দুর্ভোগ বেড়ে গেছে। সার্বিক ক্ষয়- ক্ষতির দিকে প্রশাসন খেয়াল রাখা হচ্ছে।

এবিএন/নজরুল ইসলাম/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm