সরিষাবাড়ী পৌরসভারর মেয়র অবরুদ্ধ

জামালপুর, ২০ মে, এবিনিউজ : জামালপুরের সরিষাবাড়ী পৌরসভার মেয়র রোকনুজ্জামান রোকনকে অবরুদ্ধ রাখা হয়েছে।  অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ ও বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে মেয়র ও কাউন্সিলরদের মধ্যে হাতাহাতির প্রেক্ষিতে ঘটনাটি ঘটেছে। আজ রবিবার দিনভর উভয়পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভের মুখে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

কাউন্সিলর-কর্মচারীরা দুপুর পর্যন্ত পৌরমেয়র রোকনকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে। রোকন পৌর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি। মারমুখি পরিবেশে অবরুদ্ধ মেয়র তাঁর পিস্তল বের করলে হাতাহাতির শুরু হয়। ছাত্রলীগের সভাপতি আল-আমিন হোসাইন শিবলু এসময় পিস্তলের আঘাত পান।

মেয়র রুকুনুজ্জামানের বিরুদ্ধে নিয়োগ বানিজ্যের অভিযোগ ওঠেছে। তিনি নিয়মিত অফিস করেন না। ছুটির দিনে অফিস খোলেন। টেন্ডার ছাড়াই পছন্দের লোকদের কাজ পাইয়ে দিতে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির আশ্রয় নেন। এক বছর ধরে কর্মচারী ও কাউন্সিলরদের বেতন-ভাতা দেয়া হয় না।

এ নিয়ে কাউন্সিলর ও কর্মচারীরা মেয়রের সাথে কথা বলর সময় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম খান বলেন-দিনভর পৌরসভায় উত্তেজনার মুখে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ-পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

ওইদিন বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে মেয়রের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ ছানোয়ার হোসেন বাদশা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম খান, যুবলীগ সভাপতি একেএম আশরাফুল ইসলাম, ছাত্রলীগ সভাপতি আল-আমিন হোসাইন শিবলুসহ কাউন্সিলর-কর্মচারীরা এতে উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র রুকুনুজ্জামান রোকন দুর্নীতি ও গুলিবর্ষণের চেষ্টা অস্বীকার করে বলেন, আমি  পরিস্থিতির শিকার। কাউন্সিলরদের অনৈতিক দাবি পূরণ নাকরায় ষড়যন্ত্রমূলক আক্রমন করে দেহরক্ষী শিহাবকে মারধর করেছে।

এবিএন/মো: শাহ্ জামাল/জসিম/রাজ্জাক