চিরিরবন্দরে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে গণধোলাই

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯, ১৭:৪৯

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ৪ বছরের এক শিশু কন্যাকে ধর্ষণ চেষ্টার করার সময় এলাকাবাসী ধর্ষণচেষ্টাকারীকে হাতেনাতে আটক করে গণধোলাই দিয়ে থানা পুলিশে সোর্পদ করেছে। গণধোলাইয়ের স্বীকার মোস্তাকিম হোসেন (৫০) কে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনাটি গতকাল ১১ জুন মঙ্গলবার বিকেল আনুমানিক ৩টায় উপজেলার ৪নং ঈসবপুর ইউনিয়নের হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রামে মুন্সিপাড়ায় ঘটেছে। ধর্ষণচেষ্টাকারী মোস্তাকিম হোসেন উপজেলার দগরবাড়ি গ্রামের মৃত আফাজউদ্দিনের ছেলে।

শিশুটির পিতা নুর ইসলাম জানান, এসময় আমার শিশু মেয়েটি বাড়ির সামনে খেলা করতেছিল। পূর্ব পরিচয়ের সুত্র ধরে ধর্ষণ চেষ্টাকারী মোস্তাকিম আমার মেয়েকে ফুসলিয়ে পার্শ্ববর্তী ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ওই সময় শিশুটি চিৎকার করে।

এসময় এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মোস্তাকিমকে হাতেনাতে আটক করে গণধোলাই দেয়। এসময় মেয়েটি উপস্থিত সকলকে ঘটনার বিস্তারিত জানায়। এতে স্থানীয় লোকজন মোস্তাকিমকে উত্তম মধ্যম দিয়ে থানা পুলিশের নিকট সোপর্দ করে।

চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেপ্লক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন জানান, শিশুটিকে তার পরিবারের লোকজন বিকেল ৬টায় শিশুটিকে গোসল করিয়ে স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে আসেন। এসময় শিশুটি ভীতসন্ত্রস্থ ছিল। ধর্ষণের আলামত না থাকলেও ধর্ষণ চেষ্টা হতে পারে।

আটক মোস্তাকিম জানান, সে হ্যারো দিয়ে জমিচাষ করে। ওই মুর্হুতে তার মাথা ঠিক ছিল না। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হারেসুল ইসলাম শিশুটিকে হাসপাতালে দেখতে যান। তিনি আরো বলেন, আমি প্রাথমিকভাবে মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি। লিখিত অভিযোগ দিলেই ধর্ষণচোষ্টাকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. গোলাম রব্বানী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে শিশুটির খোঁজখবর নেন এবং দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।


এবিএন/রফিকুল ইসলাম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ