১৮ যাত্রী নিয়ে মাঝ পদ্মায় স্পিডবোট ডুবি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ আগস্ট ২০১৯, ১২:৪৯ | আপডেট : ১৩ আগস্ট ২০১৯, ১৫:২০

বৈরী আবহাওয়ায় তীব্র স্রোতের কারণে পদ্মা নদীর কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটের লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে ১৮ জন যাত্রী নিয়ে একটি স্পিডবোট ডুবে গেছে।এ ঘটনায় এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকালে কয়েকজন যাত্রীসহ মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা স্পিডবোটটির ইঞ্জিন বিকল হলে মাঝ পদ্মায় ডুবে যায়। 

কাঁঠালবাড়ি ঘাট সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সকালে ২০ জন যাত্রী নিয়ে একটি স্পিডবোট মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাট থেকে কাঁঠালবাড়ি ঘাটের দিকে রওনা হয়। সকাল পৌনে ৯টার দিকে মাঝ পদ্মায় পৌঁছালে হঠাৎ ঝোড়ো হাওয়া ও বৃষ্টিতে স্পিডবোটটি উল্টে যায়। এ সময় স্পিডবোটের ১৬ জন যাত্রী পানিতে ডুবে যায়। পরে ঘাট থেকে অন্য একটি স্পিডবোট গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় কয়েকজন যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানালেও রনি নামের এক শিশুর নিখোঁজ থাকার কথা বলছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিসিএ)।

বিআইডব্লিউটিসির কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আক্তার হোসেন বলেন, ‘সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শিমুলিয়া থেকে আসা স্পিডবোটটি মাঝ পদ্মায় ডুবে যায়। অন্যান্য যাত্রীদের উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এক শিশু যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে বলে জানতে পেরেছি। এদিকে বৈরী আবহাওয়ার কারণে সকাল পৌনে ৯টা থেকে লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল বন্ধ রয়েছে। 

লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কাবিরুল ইসলাম জানান, মাঝ পদ্মায় ঝড়ের কবলে পড়ে প্রচণ্ড বাতাসে স্পিডবোটটি উল্টে যায়। নিকটবর্তী একটি খালি স্পিডবোটের মাধ্যমে যাত্রীদের সরিয়ে নেওয়া হয়। এ ঘটনায় একজন নিখোঁজ আছে ও তার সন্ধানে উদ্ধার কাজ চলছে। 

এবিএন/নির্মল/জসিম/এনকে

এই বিভাগের আরো সংবাদ