ধর্মপাশায় শিশু ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ আগস্ট ২০১৯, ২০:০৫

সুনামগঞ্জের ধর্মপাশায় বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে আট বছরের বাক্-প্রতিবন্ধী এক কন্যাশিশুকে জোর পূর্বক ধর্ষণের মামলায় পলাতক আসামি ধর্ষক রুমালীকে (১৮) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে উপজেলা সদর বাজার এলাকা থেকে ওই ধর্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়। ধৃত ধর্ষক রুমালী উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধর্মপাশা পূর্বপাড়া গ্রামের খোকন চৌধুরীর ছেলে।

গত রবিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে বাক্প্রতিবন্ধী ওই শিশুটিকে তার বাবার চায়ের দোকান থেকে বাড়ি পৌঁছে দেয়ার কথা বলে নিয়ে গিয়ে পথে নির্মাণাধিন একটি পরিত্যক্ত ভবণে শিশুটিকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে প্রতিবেশী ওই লম্পট রুমালী পালিয়ে যায়। পরে ওই রাতেই ধর্ষিতা শিশুটির পিতা বাদি হয়ে ধর্ষক রুমালীকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ধর্মপাশা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।


পুলিশ ও মামলার বিবরণে জানা গেছে, উপজেলা সদরের ধর্মপাশা পূর্বপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ও বাজারের চা বিক্রেতার বাক্-প্রতিবন্ধী ওই শিশুকন্যাটি রবিরার সন্ধ্যায় তার বাবার সাথে দোকানে আসে। কিন্তু মেয়েটির বাবা দোকানের কাজ সেড়ে বাড়ি যেতে তার বিলম্ব হবে বিধায় তিনি ওই রাত সাড়ে আটটার দিকে মেয়েটিকে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার জন্য প্রতিবেশী খোকন চৌধুরীর ছেলে রুমালীর কাছে বুঝিয়ে দেন।

কিন্তু লম্পট রুমালী মেয়েটিকে বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার সময় পথে আইন উদ্দিনের নির্মাণাধীন পরিত্যক্ত একটি ভবনে নিয়ে শিশুটিকে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। পরে মেয়েটির কান্নার শব্দ শুনে আশ পাশের লোকজন টর্চ লাইট জ্বালিয়ে ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে আসতে দেখে ধর্ষক রুমালী  সেখান থেকে দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে পাশের নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।
 
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আজিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনার পর থেকেই ধর্ষক রুমালী এলাকা ছেড়ে গা ঢাকা দেয়। পাশাপাশি আমরাও তাকে গ্রেপ্তারের জোর চেষ্টা চালিয়ে আসছিলাম। এ অবস্থায় বুধবার বিকেলে ধর্ষক রুমালী ধর্মপাশা সদর বাজার হয়ে অন্যত্র পালিয়ে যাচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে ধর্মপাশা বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে আমরা তাকে গ্রেপ্তার করি।
 

এবিএন/ইমাম হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ