শরণখোলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ১১

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:০১

বঙ্গোপসাগরের দুবলারচরের নারিকেলবাড়িয়া এলাকায় গতকাল শুক্রবার সকালে ইলিশ ধরার জাল ফেলার আধিপত্যকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের জেলেরা হামলা ও মারধর করে নগদ ৫ লক্ষাধিক টাকার জাল এবং ইলিশ মাছ লুট করে নিয়ে গেছে। 

এ ঘটনায় ১১ জেলে আহত হলেও গুরুতর আহত ৬ জনকে গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। 

আহত জেলেরা হলেন বাবুল পাহলান, ফোরকান তালুকদার, মো. মেহেদী হাসান, আ. হক, মো. মুসা ও মো. আবু হানিফ। 

সাগর থেকে ফিরে আসা ক্ষতিগ্রস্ত ফিশিং বোট এফবি আল্লাহ্ মালিকের স্বত্বাধিকারী শরণখোলা উপজেলার রাজেশ্বর গ্রামের বাবুল পাহলান গতকাল শুক্রবার রাত ৮টায় শরণখোলা প্রেসক্লাবে এসে সাংবাদিদের কাছে অভিযোগ করে জানান তিনি তার ফিশিং বোট নিয়ে একইদিন সকালে নারিকেলবাড়িয়া এলাকার সাগরে মাছ ধরার জন্য জাল ফেলে। 

এ সময় বরগুনার পাথরঘাটার রিনা কর্মকারের ফিশিং বোটের মাঝি ফোরকানের নেতৃত্বে পাথরঘাটা এলাকার আরো ৭/৮টি ফিশিং বোটের জেলেরা সংঘবদ্ধ হয়ে তার বোটে হামলা চালিয়ে ফিশিং বোটে থাকা জেলেদের বেদম মারধরের পর তিন লাখ টাকার জাল, ২ লাখ টাকার ইলিশ মাছসহ অন্যান্য সরঞ্জাম লুট করে নিয়ে অত্র এলাকায় ফের মাছ না ধরার হুমকি দিয়ে চলে যায়। 

বাংলাদেশ ফিশিং ট্রলার মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আলহাজ সাইফুল ইসলাম খোকন জানান সাগরে প্রতিনিয়ত শরণখোলা অঞ্চলের জেলেরা পাথরঘাটার জেলেদের হামলা, মারধর ও লুটপাটের শিকার হয়। তারা সাগরে আধিপত্য বিস্তার করে নিজেরা মাছ ধরে নিয়ে যাবার পায়তারা চালায়। 

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান ঘটনাটি তিনি শুনেছেন।  

এবিএন/নজরুল ইসলাম আকন/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ