তজুমদ্দিনে ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এক ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:০০

ভোলার তজুমদ্দিনে দশম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে অপহরণ, ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগ করেছে নির্যাতিতা মেয়েটির বাবা। কান্নাজড়িত কন্ঠে অসহায় পিতা জানান, শশীগঞ্জ বাজারের গার্মেন্টস দোকান ব্যাবসায়ী মিরাজ উদ্দিন তার বড় ভাই, মামা আমির হোসেন ও দুলাভাই নোমান সহ গত ১৪ আগস্ট প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফেরার পথে তার মেয়েকে  জোড় পূর্বক তুলে পালিয়ে যায়। চট্রগ্রামের বিভিন্ন এলাকায়  মিথ্যা স্বামী স্ত্রী পরিচয় দিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণের পর তাকে গোলকপুর গ্রামে নিজের বাড়িতে রেখে ফেলে পালিয়ে যায় শামসুল ব্যাপারীর ছেলে মিরাজ উদ্দিন।

 পূর্ব বিবাহিত মিরাজ উদ্দিনের আগের স্ত্রীর কাছে ঘটনা প্রকাশ পাওয়ায় নাবালিকা সেই ছাত্রীকে অকথ্য নির্যাতনের পর তার মা ও বোন পুনরায় মেয়েটিকে মারধর করে রাস্তায় বের করে দিলে মেয়েটির ভাই তা জানতে পেরে তাকে তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। মহিলা ওয়ার্ডের ৫ নম্বর বেডে ভর্তি ওই নির্যাতিতা মেয়েটি এ প্রতিবেদককে জানান তিনি তার উপর চলা ধর্ষণ ও অমানুষিক নির্যাতনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

এদিকে মিরাজ উদ্দিনকে মুঠোফোনে না পাওয়া গেলে তার বড় ভাইকে বিষয়টি জিজ্ঞাসা করলে তিনি তা অস্বীকার করেন।


এবিএন/নয়ন রায়/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ