কার্যালয়ে বসেই ধুমপান করেন মনোহরদীর হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আজাদ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০১৯, ২০:৩৬

নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুর রহমান আজাদের ঘুষ গ্রহণ, নানা রকমের হয়রানী, দূর্ব্যবহারসহ নানা অভিযোগ নিয়ে স¤প্রতি উপজেলা জুড়ে চলছে নানা রকমের আরোচনা ও সমালোচনা। এই অসাধু কর্মকর্তার বদলীর দাবিতে সম্প্রতি কার্যালয় ঘেরাও করেছিল হিসাবরক্ষণ অফিসে আসা অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তা কর্মচারীসহ আরো চাকুরিরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ।

সেবা না পেয়ে ভূক্তভোগীরা তাঁর বিচার দাবিতে কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও এখনো পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। কাউকে কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে নিজের মন গড়া মতো  অনিয়ম-দূর্নীতির পাশাপাশি এই কর্মকর্তা তাঁর কার্যালয়ে বসে অবসর প্রাপ্ত শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ আরো অন্যান্য কর্মকর্তার সামনে প্রকাশ্যে ধূমপান করার অভিযোগ ছিল দীর্ঘদিনের।

২০১৩ সালে পাস হওয়া তামাক নিয়ন্ত্রণ সংশোধিত আইনে সরকারী-বেসরকারী কার্যালয়সহ ২৪ ধরণের স্থানকে পাবলিক প্লেস ঘোষনা দিয়ে সেসব জায়গায় ধূমপান স¤পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

অথচ মনোহরদী উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুর রহমান আজাদ এই আইনকে বৃদ্ধাক্সগুলী দেখিয়ে প্রতিদিন অফিস চলাকালীন সময়ে নিজ কক্ষে বসে প্রকাশ্যে ধূমপান করছেন। অসাধু এই কর্মকর্তা তার  কার্যালয়ের নিজ চেয়ারে বসে বাম হাতে সিগারেট টানছেন আর ডান হাতে দাপ্তরিক কাজ করছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছক অবসরপ্রাপ্ত একজন সরকারী কর্মকর্তা বলেন, প্রতিমাসে পেনশন নিতে আসলেই দেখি হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা তার চেয়ারে বসে সিগারেট টানছেন। সিগারেটের ধোঁয়ায় অফিসের পরিবেশ নষ্ট হয়ে যায়। আমরা বাধ্য হয়ে অফিস ছেড়ে বাহিরে দাঁড়িয়ে থাকি।

অফিসে বসে প্রকাশ্যে ধূমপানের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা আব্দুর রহমান আজাদ বলেন, আমি সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে বাধ্য নই। উর্দ্ধতন স্যারেরা আপনাদের সাথে কথা বলতে নিষেধ করেছেন।

মনোহরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাফিয়া আক্তার শিমু সাংবাদিকদেও বলেন, উপজেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা তাঁর কার্যালয়ের চেয়ারে বসে ধূমপান করার বিষয়টি ফেসবুকের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


এবিএন/আনোয়ার হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ