ভালুকায় ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ইউপি সদস্য শ্রীঘরে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ১৭:৩৪

 ২ সন্তানের জননী গূহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কাচিনা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবু বকর সিদ্দিক ওরফে বাবুল মেম্বারকে স্থানীয়রা গণধৌলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে । এ ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি ধর্ষণের চেষ্টার মামলা করেছেন।

( মামলা নং ২৩) । মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল বৃহস্পতিবার তালাব গ্রামে ভিকটিমের স্বামী  আহাম্মদ আলী একটি মামলার হাজিরা দিতে ময়মনসিংহ আদালতে চলে যায়। বাড়ী ফাঁকা পেয়ে বাবুল মেম্বার সন্ধ্যায় আহম্মেদ এর বাড়ীতে গিয়ে তার স্ত্রীকে কু প্রস্তাব দেয়। এক পর্যায়ে ঘরে একা পেয়ে আহম্মেদ এর স্ত্রীকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। দস্তাদস্তির এক পর্যায়ে ভিকটিমের ৯মাস বয়সী শিশু সামিউল কপালে আঘাত প্রাপ্ত হয়।

পরবর্তীতে ভিকটিম কৌশলে ঘর হতে বাহির হয়ে বাবুল মেম্বারকে ঘরে রেখে বাহির হতে তালা লাগিয়ে দেয়। পরে খবর পেয়ে আশপাশের লোকজন ওই বাড়ীতে গিয়ে ভিড় জমায়। বিক্ষুদ্ধ জনতা ঘরে ডুকে বাবুল মেম্বারকে গনপিটুনি দিয়ে ভালুকা মডেল থানায় খবর দেয়। পরে পুলিশ বাবুল মেম্বারকে গ্রেপ্তার করে ভালুকা মডেল থানায় নিয়ে আসে।

ভিকটিম জানায়,ঘটনার সময় আমার স্বামী বাড়ীতে ছিল না। বাবুল মেম্বার আমার বসত ঘরে ঢুকে আমাকে জোর পূর্বব ধর্ষণের চেষ্টায় খাটের মাঝে শোয়ানোর চেষ্টা করে। দস্তাদস্তির এক পর্যায়ে আমি কৌশলে ঘর হতে বাহির হয়ে ঘরে দরজায় তালা লাগিয়ে দেই।

ভালুকা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ মাজহারুল ইসলাম জানান,স্থানীয়রা মেম্বারকে আটক করে পুলিশে খবর দিলে আমি পুলিশ পাঠিয়ে তাঁকে থানায় নিয়ে আসি । এ ঘটনায় ভিকটিম বাদী হয়ে মেম্বারকে আসামী করে একটি ধর্ষণ চেষ্টা মামলা করে। শুক্রবার তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

 এবিএন/জাহিদুল ইসলাম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ