আশাশুনির পরিবার পরিকল্পনা অফিস নির্মাণের ৮ মাস পরও হস্তান্তর হয়নি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৯:৪০

আশাশুনি উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা স্টোর কাম অফিস ভবন প্রায় ৮ মাস আগে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হলেও এখনো হস্তান্তর হয়নি। ফলে পরিবার পরিকল্পনা দপ্তরের ভোগান্তি বেড়েই চলেছে।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের পৃথক ভবন না থাকায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনে ছোট খাট পরিসরে কোন রকমে কাজ চালান হয়ে আসছে। অফিসারের বসার স্থান ছোট্ট একটি কক্ষে, নেই কোন টয়লেট ব্যবস্থা। অফিসের কর্মচারীদের জন্যও একই অবস্থা, কোন রকমে ছোট্ট কক্ষে একাধিক কর্মচারীর কাজকামের ব্যবস্থা। অনেক জনবল নিয়ে পরিচালিত দপ্তরটির কাজের সুবিধার কথা বিবেচনা করে সরকার পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের জন্য পৃথক ভবন নির্মানের জন্য বরাদ্দ প্রদান করেন। ২০১৮ সালের জুন মাসের দিকে নির্মান কাজ শুরু করেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।

প্রায় ৮১ লক্ষ টাকা ব্যয় বরাদ্দে ২ তলা ভবন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ১ম তলায় একটি স্টোর রুম ও স্টোর কিপারের জন্য একটি রুম রয়েছে। ২য় তলায় ৪টি ছোট কক্ষ ও একটি বড় কনফারেন্স রুম রয়েছে। নির্মান কাজ ২০১৯ সালের জুন মাস নাগাদ শেষ হয়। তখন ভবনটি হস্তান্তরের কথা। কিন্তু বিদ্যুৎ সংযোগ না করায় হস্তান্তর সম্ভব হয়নি। এরপর ৬ মাস লেগে যায় বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা করাতে। গত ডিসেম্বর মাসে বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা হয়। কিন্তু পানির সরবরাহ ব্যবস্থাপনা করা হয়নি, তাই থেমে যায় হস্তান্তর।

আবারও দীর্ঘসুত্রিতা। এক সপ্তাহের কাজ না হলেও লেগে গেছে প্রায় দু’ মাস, কিন্তু এখনো পানি সরবরাহ ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন হয়নি। তাই থেমে আছে বিল্ডিং হস্তান্তর কার্যক্রম। অনেক আশা নিয়ে অপেক্ষারত পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও সেবা পেতে আগ্রহীরা তাই চিন্তিত, কবে হবে ভবনের হস্তান্তর তা নিয়ে। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পানির সরবরাহ ও বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় দীর্ঘ সময় ভবনটি ব্যবহারের জন্য হস্তান্তর সম্ভব হয়নি।


এবিএন/জি এম মুজিবুর রহমান/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ