সিরাজগঞ্জে একরাতে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৬ স্কুল ছাত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০২০, ১৬:৫৫

সিরাজগঞ্জে একরাতে ৬ স্কুল ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আনিসুর রহমান। সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এক রাতে এই ৬টি বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন তিনি। ইতিমধ্যে ২ শতাধিক বাল্যবিয়ে বন্ধ করে সুনাম অর্জনের পাশাপাশি চাঞ্চল্যের সৃষ্টি ও সরকারের কাছ থেকে একাধিকবার পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, উক্ত উপজেলার ধীতপুর কানু গ্রামের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতি খাতুনের (১৪) বিয়ের আয়োজন চলছিল। এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে অভিযান চালিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ এবং কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সন্ধ্যায় কাদাই গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী আফরোজা খাতুনের (১৩) বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়।  পরে বাগবাটি দক্ষিণ পাড়া গ্রামের সুবর্ণা খাতুনের (১৬) সাথে ব্রাহ্মণগাঁতী গ্রামের আজিজল হকের বিয়ের আয়োজন চলছিল। সেখানে অভিযান চালিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়।

এ সময় কাজী রেজাউল করিমকে ৫০ হাজার, বর আজিজল হককে ৫ হাজার ও কনের ভগ্নিপতি খোকন মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। রাতে শিবনাথপুর গ্রামের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী আতিয়া খাতুনের (১৪) সাথে খামার পাইকোশা গ্রামের ইউসুফ আলীর (২৫) বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয়। এ সময় বর-কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। কানগাঁতী গ্রামের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী নুপুর (১৫) ও নান্দিনা গ্রামের ইমরানের (২৩) বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয় এবং বর ও কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

সবশেষে মালিগাঁতী গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৭ম শ্রেণির ছাত্রী লিমা খাতুনের (১২) বাল্যবিয়ে বন্ধ করা হয় এবং কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সেইসাথে এসব অভিভাবকদের কাছ থেকে মেয়েকে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না মর্মে মুচলেকা নেয়া হয়। এ অভিযানে সিরাজগঞ্জ সদর থানার এস আই আজিম, পৌর ভূমি সহকারী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম, নূরে এলাহী ও আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


এবিএন/এস.এম তফিজ উদ্দিন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ