বদলগাছী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামীণ সড়ক বেহাল দশা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫:১১ | আপডেট : ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫:১৮

বদলগাছী (নওগাঁ) সংবাদদাতা : নওগাঁর বদলগাছীতে গ্রামীণ সড়ক গুলো চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বেপরোয়া ভাবে ইটভাটার মাটি ও ইট  বহনকারী ট্রাক্টর চলাচলের কারনে রাস্তাগুলো খানা-খন্দের সৃষ্টি হয়ে পড়েছে। প্রতি বছরই ইটভাটার মৌসুমে কয়েক মাস ধরে একই রাস্তা দিয়ে বেপরোয়া ভাবে অনর্গল মাটি বহনকারী ট্রাক্টর চলাচলের কারনে রাস্তাগুলো চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।বদলগাছী উপজেলার প্রায় এলজিইডির গ্রামীণ রাস্তা গুলো খানা-খন্দে ভরপুর সেদিকে প্রশাসন কোন নজর না দেওয়ায় মেরামতের কিছু দিন পরই চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে।

বেপরোয়া ভাবে  এই যানবাহনের কবলে পড়ে মাঝে মধেই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। আর সেখান থেকে অনেকে বরণ করছে পঙ্গুত্ব।এছাড়া বিভিন্ন গ্রামের জনসাধারণের চলাচলের জন্য উপজেলা সদরের সাথে যোগাযোগের পাকারাস্তা গুলোর একই অবস্থা। এলজিইডির গ্রামীণ রাস্তাগুলো সরকারী ভাবে ধারণ ক্ষমতা ১৫টনের বেশী বোঝাই পরিবহন করা নিষেধ থাকলেও কেউ তা মানেনা। উপজেলার মথুরাপুর ইউপির চাঁপাইনগর মৌজায় অবস্থিত মুন ব্রিকস (ইট ভাটা) এলজিইডির রাস্তার উপর দিয়ে সব সময় ট্রাক্টর দিয়ে মাটি ও ইট পরিবহন করায় জন সাধারনের চলাচলের ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। 

এ ঝুকিপূর্ণ রাস্তাটি দিয়ে প্রতিদিন কিছু সংখ্যক শিশু শিক্ষার্থী, সাইকেল, মোটরসাইকেল ও ভ্যানসহ বিভিন্ন প্রকার যানবাহন চলাচল করতে হয়। ভাটা মালিক (মুন ব্রিকস) বাচ্চু রহমান বলেন, যদিও সরকারী ভাবে নিষেধ আছে তারপরও করার কিছু নেই আমাদেরকেও তো চলতে হবে। এছাড়া কোলা ইউপির কোলা বাজার হইতে হুদাইকুরি হয়ে পারসোমবাড়ী বাজার পর্যন্ত প্রায় ৭-৮কিঃ মিঃ পাকা রাস্তার পিচ ও খোয়া উঠে ক্ষত-বিক্ষত হয়ে ধুলো-বালিতে পরিণত হয়েছে। আবার সামান্য বৃষ্টি হলে পাকা রাস্তা কর্দমাক্ত হয়। উপজেলার প্রায় সব রাস্তাগুলোর একই অবস্থা।

বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডাঃ কানিজ ফারহানা বলেন, ধুলাবালিযুক্ত রাস্তায় চলাচলের দ্বারা শিশুরা নিউমোনিয়া রোগে আক্রান্ত হওয়ার বেশ সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়াও এই ধুলাবালি নাশিকা দিয়ে প্রবেশ করায় জনসাধারণের শ^াসকষ্ট রোগ সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এবিষয়ে বদলগাছী উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) মোঃ মোখলেছুর রহমান বলেন সরকারী নিয়ম অনুযায় রাস্তা গুলোতে ১৫টন এর বেশী লোড দেওয়া নিশেদ থাকলেও কেউ তা মানছেনা উপজেলা বিভিন্ন স্থানে প্রায় ২০কিঃমিঃ গ্রামীন রাস্তা গুলো মেরামতের জন্য বরাদ্দচেয়ে আবেদন পাটানো হয়েছে বরাদ্দ আসলেই কাজ শুরু করা হবে। #


এবিএন/হাফিজার রহমান/জসিম/অসীম রায়  
    
   

  
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ