বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বই

  সুভাষ সিংহ রায়

১৫ আগস্ট ২০১৯, ১১:৩৮ | অনলাইন সংস্করণ

পুরো নাম আবদুল লতিফ খতিব, এএল খতিব নামে বিশেষভাবে পরিচিতি পেয়েছিলেন। বাঙালি না হয়ে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে ভালোবেসে ফেলেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সপরিবারের হত্যাকাণ্ড তাকে ভীষণভাবে ক্ষুব্ধ করেছিল। ১৯৮১ সালের মার্চ মাসে প্রকাশিত হয় 'হু কিলড মুজিব'। কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায় এই বাংলা সংস্করণের ভূমিকা লিখেছিলেন। বেস্ট সেলারের তালিকায় এই বইটা ছিল, পাকিস্তানে অনুমোদিত উর্দু ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। কয়েক দশকের সাংবাদিকতার অভিজ্ঞতায় ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের ঘটনার পূর্বাপর তার প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতায় ছিল। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পেছনের খলচরিত্রগুলো তার এই বইতে স্পষ্ট করে ফুটিয়ে তুলেছেন। ধরে নেওয়া হয়, এই বই লেখার কারণে তাকে অনেক বিড়ম্বনা সহ্য করতে হয়েছিল। 

২০১১ সালে পেঙ্গুইন থেকে লেখক নীতিশ সেনগুপ্তের বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে একটা অন্যরকম বই বেরিয়েছে- 'ল্যান্ড অব টু রিভারস; অ্যা হিস্ট্রি অব বেঙ্গল ফ্রম মহাভারত টু মুজিব'। প্রথম ছোট গল্প লিখে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ জানান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আবুল ফজল। সে সময়টাতে লেখক জিয়াউর রহমানের শিক্ষা উপদেষ্টা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা অনেক বই বেরিয়েছে। একটি বইয়ের নাম 'শেখ মুজিব আমার পিতা'। এ বইতে ১০টি প্রবন্ধ সংযোজিত হয়েছে। 'ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড' শিরোনামে লেখাটিতে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি স্পষ্টভাবে বিবৃত হয়েছে। কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলনের লেখা গল্পে 'যে রাতে নেতা নিহত হলেন' পাঠকরা জাগ্রত হয়েছিল। লেখকের আরও দুটি গল্প 'রাজার চিঠি' এবং 'মানুষ কাঁদছে' পাঠকের মনে সাড়া জাগিয়েছিল। কথাসাহিত্যিক আনিসুল হক 'আলো আঁধারের যাত্রী', 'এই আলো জ্বেলে' ধারাবাহিক উপন্যাস লিখে চলেছেন। কথাসাহিত্যিক মোস্তফা কামালের বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে এবং শেখ রাসেলকে নিয়ে দুটি উপন্যাস পাঠকদের জাগিয়ে তোলার কাজ করেছে। পশ্চিমবঙ্গের প্রধানতম কবি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় অত্যন্ত ব্যথিত চিত্তে কবিতা লিখেছিলেন। কবিতার নাম 'শিশু রক্ত'। প্রথম কবিতা সংকলন ছিল 'এই লাশ আমরা রাখবো কোথায়?' মোহাম্মদ ইলিয়াস বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বড় একটা বই লিখেছিলেন। বইয়ের নাম দিয়েছিলেন 'মুজিববাদ'। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকা অবস্থায় ১৯৭৪ সালে ড. মযহারুল ইসলাম একটা বেশ মোটা বই লিখেছিলেন। বইয়ের নাম 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব'। মহান মুক্তিযুদ্ধে বীরত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন সাবেক কূটনীতিক এসএ করিম। একটা অসাধারণ বই লিখেছিলেন- 'শেখ মুজিব, ট্রায়াম্ম্ফ অ্যান্ড ট্র্যাজেডি'। কবি মহাদেব সাহা তার কবিতায় লিখেছেন এভাবে, তাকে বার্লিনের এক ভায়োলিন বাদক জিজ্ঞেস করেছিলেন, তোমার পরিচয় কী? কবি তৎক্ষণাৎ পকেট থেকে একটা ১০ টাকার নোট বের করে বঙ্গবন্ধুর ছবিটা দেখিয়ে বলেছিলেন, এই আমার পরিচয়, এর চেয়ে বেশি কিছু আমি জানি না। 

বাংলা সাহিত্যে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহর 'লাল সালু' এক অনন্যসাধারণ সৃষ্টি। একজন দেশপ্রেমিক কূটনীতিক মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছেন এবং বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বের ওপর অগাধ আস্থা ছিল তা ড. আবদুল মতিনের গ্রন্থ 'জেনেভায় বঙ্গবন্ধু'তে ফুটে উঠেছে। ড. আবদুল মতিন বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের পর বেশ কয়েকটি বই লিখেছেন। বইগুলো তথ্য সমৃদ্ধ। যেমন- বঙ্গবন্ধু হত্যা : জাতির বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব : কয়েকটি প্রাসঙ্গিক বিষয়, জেনেভায় বঙ্গবন্ধু : লেখকের স্মৃতিচারণ-পাঁচ অধ্যায়, 'বিজয় দিবসের পর বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ', 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব : কয়েকটি ঐতিহাসিক দলিল', 'বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব-মুক্তিযুদ্ধের পরে', 'বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শেষ হয়নি এখনও'। 

বঙ্গবন্ধুর 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী' ও 'কারাগারের রোজনামচা' গ্রন্থ দুটি বঙ্গবন্ধুর নিজের হাতের লেখা ডায়েরি থেকে প্রকাশিত। 'অসমাপ্ত আত্মজীবনী'র প্রকাশক ইউপিএল ও 'কারাগারের রোজনামচা'-এর প্রকাশক বাংলা একাডেমি। অবিভক্ত ভারতে জওহরলাল নেহরু জেলখানায় বসে লিখেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ কিছু লেখা। মার্টিন লুথার কিং কারাগারে বসে লিখেছিলেন- 'বার্মিংহাম জেল'। নেতাজি সুভাষ বসুও জেলখানায় বসে একটি অসমাপ্ত আত্মজীবনী লিখেছিলেন- 'এক ভারতীয় তীর্থযাত্রী'। আমাদের পাঠকদের হাতে তা পৌঁছানোর কথা না। ১৯৭১ সালে 'বঙ্গবন্ধু ও রক্তাক্ত বাংলা' শীর্ষক এক নিবন্ধে পশ্চিমবঙ্গের খ্যাতনামা লেখক নিরঞ্জন মজুমদার লিখেছিলেন, দেশে দেশে নেতা অনেকেই জন্মান। কেউ ইতিহাসের একটি পঙ্‌ক্তি, কেউ একটি পাতা, কেউবা এক অধ্যায়। কিন্তু কেউ আবার সমগ্র ইতিহাস। শেখ মুজিব এই সমগ্র ইতিহাস। সারা বাংলার ইতিহাস। কবি নির্মলেন্দু গুণ যখন বাংলা একাডেমিতে ১৯৭৭ সালের ২১ ফেব্রুয়ারিতে 'আমি আজ কারো রক্ত চাইতে আসিনি' কবিতার লাইনগুলো উচ্চারণ করেছিলেন, তখন সমবেত সকলে প্রতিধ্বনি করেছিল।

'সমবেত সকলের মতো আমারো স্বপ্নের প্রতি পক্ষপাত আছে,/ ভালোবাসা আছে- শেষ রাতে দেখা একটি সাহসী স্বপ্ন গতকাল/ আমাকে বলেছে, আমি যেন কবিতায় শেখ মুজিবের কথা বলি।/ 

আমি তাঁর কথা বলতে এসেছি।' 
 
রাজনৈতিক বিশ্নেষক

এই বিভাগের আরো সংবাদ