৫৩ বছর ধরে গরিবের মুখে হাসি ফোটাতে ব্যস্ত ‘জনতার ডাক্তার’

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৪ জুলাই ২০১৯, ০৮:৫৩ | আপডেট : ০৪ জুলাই ২০১৯, ০৮:৫৫

আলোকিত মানুষ ডাক্তার বসন্ত কুমার রায়ের একটি উদ্যোগে বদলে গিয়েছে দিনাজপুরের কালিতলা এলাকার চিত্র। অসহায় গরিব মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে তিনি খুঁজে পান অনাবিল আনন্দ। দিনাজপুর শহরে নিজের চেম্বারে রোগী দেখেন মাত্র ৪০ টাকায়, কখনো আবার বিনা পয়সায়। ৫৩ বছর আগে মাত্র দুই টাকা ভিজিট নিয়ে শুরু করেছিলেন রোগী দেখা। দিনে দিনে বসন্ত রায় হয়ে উঠেছেন জনতার ডাক্তার।

ডাক্তার বসন্ত কুমারের কাছে চিকিৎসা নিতে আসা এক নারী বলেন, ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে আমরা উনার কাছে আসছি। আমার মেয়ে যখন জন্ম হয়, তখন থেকে আমরা এখানেই আসি। যেকোনো রোগ উনি হাত দেখলেই বুঝতে পারে। এখন তো ভিজিট নেয়ই না। শুধু ওষুধের দাম নেয়।

বসন্ত কুমার রায় বলেন, ওই রোগী ছোট বেলায় আমার কাছ থেকে চিকিৎসা নিয়েছে। ওর পরিবার চিকিৎসা করেছে। ও এখন বড় হয়ে গেছে। ওর ছেলেপেলে হয়েছে। তার সঙ্গে আমার একটা মনের যোগাযোগ তো হয়ে গেছে। তার কথা বিবেচনা করে কিছু টাকা নেই আরকি।

এমবিবিএস এই ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নিতে আসা আরও একজন নারী বলেন, উনি অল্প টাকায় আমাদের চিকিৎসা করেন। খুবই ভালো ডাক্তার।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিবিএস পাস করেছিলেন বসন্ত কুমার রায়। স্বামী বিবেকানন্দের আদর্শের আলোয় আলোকিত এই মানুষটির জীবন। তিনি বিশ্বাস করেন জীবনে বেঁচে থাকতে হলে টাকা, জীবন যাত্রার মান, সময় এসব কিছুই মূখ্য নয়। বড় হলো মানুষের জন্য কিছু করার মানসিকতা।

মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতে আশ্রয় নেওয়া বাংলাদেশি শরনার্থীদের সেবার দায়িত্ব পালন করেছিলেন ডাক্তার বসন্ত কুমার। আলোকিত এই মানুষটি স্বপ্ন দেখেন তার চারপাশে সেবার আলো ছড়িয়ে যাবেন জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ