জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে স্বস্তিতে মোদী সরকার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ আগস্ট ২০১৯, ১৫:৪৬

জম্মু-কাশ্মীরে ১৪৪ ধারা সরানোর মামলায় সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, বিষয়টি স্পর্শকাতর৷ এই বিষয়ে কেন্দ্রকে আরও সময় দেওয়া উচিত৷ যার ফলে কেন্দ্র বড়সড় স্বস্তি পেল বলাই যায়৷

জানা যায়, জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে যে মামলা করা হয় সুপ্রিম কোর্টে, তার শুনানি মঙ্গলবার হবে বলে জানা যায়। এছাড়া সাংবাদিকদের ওপরও যে বিধি নিষেধ জারি হয়, তাই নিয়েও একটি পৃথক মামলা হয়।

প্রসঙ্গত, কাশ্মীর জুড়ে যেভাবে ফোনলাইন থেকে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে, ১৪৪ ধারা জারি রয়েছে, সেসব প্রত্যাহারে আবেদন জানানো হয়। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়ে দেয়, বিষয়টি সংবেদনশীল এবং স্পর্শকাতর, ফলে কেন্দ্রকে আরও কিছুটা সময় দেওয়া উচিত। পাশাপাশি এও জানানো হয়, দু সপ্তাহ পরে এই মামলার শুনানি হবে। 

এদিকে স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ মাইক্রোব্লগিং সাইট ট্যুইটার বন্ধ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে কাশ্মীর নিয়ে কোনও ভুল তথ্য বা রটনা রটানোর চেষ্টা করা হলে, সরাসরি সেই ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে। ৩৭০ ধারা বিলোপের পর বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়াতে পারে ভুয়ো খবর, যা কাশ্মীরের পরিস্থিতিকে অশান্ত করতে পারে।

সেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় কড়া হাতে মাঠে নেমেছে কেন্দ্র। পরিষ্কার জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ট্যুইটার ব্যবহারকারীরা সাবধান৷ কোনও অ্যাকাউন্টে কাশ্মীর নিয়ে আপত্তিকর কিছু দেখলেই তা বন্ধ করে দেওয়া হবে। এই মর্মে ট্যুইটার কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদনও জানিয়েছে কেন্দ্র৷ ইতিমধ্যেই ট্যুইটারের ৭-৮টি অ্যাকাউন্টকে চিহ্নিত করা হয়েছে, যেগুলি থেকে কাশ্মীর বিরোধী মন্তব্য ও তথ্য ছড়ানো হচ্ছে বলে কেন্দ্রের অভিযোগ।

এই ৭-৮টি অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। ট্যুইটার কর্তৃপক্ষকে এই বিষয়ে সহযোগিতা করতে বলা হয়েছে। দ্য হিন্দু সংবাদপত্রের প্রতিবেদনে এমনই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের এক উচ্চপদস্থ আধিকারিক।

এবিএন/নির্মল/জসিম/এনকে

এই বিভাগের আরো সংবাদ