ভারতে আবারও গরু নিয়ে তুলকালাম

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:৪৮

ভারতের মধ্যপ্রদেশে খাদ্যাভাবে স্কুলঘরে বন্দি থাকা ১৭টি গরু মারা যাওয়াকে কেন্দ্র করে পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে অশান্তি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ।

এখানেই শেষ নয়, এই ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ নিজে। এদিকে গরু মারা যাওয়ার ঘটনায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছে বিজেপি।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মধ্যপ্রদেশের ভোপাল থেকে ৪৬০ কিমি উত্তরে গোয়ালিয়র জেলার ডাবরা শহরের কাছে গ্রামীণ সরকারি স্কুলের একটি ঘরে অনাহারে মারা যায় ১৭টি গরু।

ডাবরা মহকুমা আদালতের বিচারক রাঘবেন্দ্র পান্ডে জানিয়েছেন, বেওয়ারিশ গরুগুলো জাতীয় সড়কে যান চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করছিল বলে স্থানীয় গ্রামের বাসিন্দারা সেগুলোকে একটি সরকারি স্কুলঘরে বন্দি করে রাখে। কিন্তু খাওয়ার ব্যবস্থা না করায় সেগুলো মারা যায়। বুধবার রাতে গরুগুলো মাটির নীচে পোঁতার চেষ্টা করার সময় ধরা পড়ে কয়েকজন গ্রামবাসী।

পুলিশ জানিয়েছে, মধ্যপ্রদেশের গো-হত্যা আইন এবং পশুদের প্রতি নিষ্ঠুরতা দমন আইনে ১০ জন গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। যে ব্যক্তি মৃত গরুগুলোকে কবর দেওয়ার জন্য মাটি খুঁড়ছিল, তাকেও বুধবার রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে।

রাঘবেন্দ্র পান্ডে জানিয়েছেন, গরুর মৃতদেহগুলোতে পচন ধরার ফলে দুর্গন্ধ ছড়ায়। ওই সময় গরুগুলো স্কুলের মাঠে পোঁতার সময় ডাবরার কয়েকজন গো-রক্ষক এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সমর্থকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে চেঁচামেচি শুরু করেন। ক্রমেই পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠলে বড় ধরনের সহিংসতার আশঙ্কা দেখা দেয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুলিশবাহিনী। তাদের সাহায্যে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ