করোনা : এই প্রথম বিশ্বভারতীতে পালন হচ্ছে না রবীন্দ্রজয়ন্তী অনুষ্ঠান

  ভাস্কর মুখোপাধ্যায়

০৮ মে ২০২০, ১০:৩৬ | আপডেট : ০৮ মে ২০২০, ১০:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

মারণ ভাইরাস করোনাকে রুখতে বিগত দেড় মাস ধরে লকডাউন দেশে। এমতাবস্থায় বিশ্বভারতীতে এই প্রথম ২৫বৈশাখে রবীন্দ্রজয়ন্তী অনুষ্ঠান হচ্ছে না। উপাসনা মন্দির এবং ঘন্টাতলাতেও কোনও অনুষ্ঠান হবে না। এদিন দু’-একজনকে সঙ্গে নিয়ে উপাচার্য নিয়ম অনুযায়ী রবীন্দ্রভবনে গিয়ে রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করেবেন শুধুমাত্র। শোনানো হবে রবিকন্ঠ। কিন্তু এর মধ্যেই শান্তিনিকেতনের প্রাক্তনী থেকে আশ্রমিক, সকলেই ঠিক করেছেন নিজেদের মতো করে তাঁরা বাড়িতে রবীন্দ্রসংগীত গেয়ে কবিগুরুকে স্মরণ করবেন।

বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গেছে, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবদ্দশায় সেই ১৯১০ সালে থেকে রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করা শুরু হয়ে। ১৯১১ সালে রবীন্দ্রনাথের পঞ্চাশতম জন্মবর্ষ উপলক্ষে বড় করে সেই জন্মজয়ন্তী পালন করা হয়েছিল। কিন্তু সেই সময় শান্তিনিকেতনে প্রচন্ড গ্রীষ্মের তাপদাহে জলকষ্ট হত। তাই রবীন্দ্রনাথ ঠিক করে ছিলেন ২৫বৈশাখের পরিবর্তে পয়লা বৈশাখ রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করা হবে। তারপর থেকে ১লা বৈশাখে নববর্ষের পাশাপাশি শান্তিনিকেতনে পালিত হত রবীন্দ্রজয়ন্তীও। কিন্তু সুজিত বসু উপাচার্য থাকার সময় নিয়ম বদলায়। ১বৈশাখের দিন ছোট অনুষ্ঠান রেখে ২৫বৈশাখ বড় করে রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করা শুরু করেন।

এদিন মূলত উপাসনা মন্দিরে সংগীত ভবনের ছাত্রছাত্রীরা সংগীত পরিবেশন করেন। পরে রবীন্দ্রভবনের উদয়ন গৃহে রবীন্দ্র প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করা হয়। পরে ঘন্টায়তলায় পাঠভবনের ছাত্রছাত্রীরা কবিতাপাঠ, রবীন্দ্রসংগীত পরিবেশন-সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান করে থাকেন। এদিকে রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষে কী করা হবে, তা নিয়ে বৃহস্পতিবার বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ একটি বৈঠকে বসে। সূত্রের খবর, ভোরে শান্তিনিকেতন বাড়ি থেকে বাজবে কবিকণ্ঠ। সকাল ৮টা নাগাদ উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী উপাসনা মন্দিরে যাবেন। সেখান থেকে দু’-চারজন তাঁর সঙ্গে রবীন্দ্রভবনে রবীন্দ্রনাথের প্রতিকৃতিতে ফুল দেবেন। এরপর সেখান থেকেই তাঁরা চলে যাবেন ছাতিমতলায়।

ঠাকুর পরিবারের সদস্য সুপ্রিয় ঠাকুর বলেন, “আমি যতটা জানি রবীন্দ্রজয়ন্তী অনুষ্ঠান কখনও বন্ধ হয়নি। কিন্তু এবার যা পরিস্থিতি কিছু করার নেই”। রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ গৌতম ভট্টাচার্য বলেন, “গুরুদেবের জীবদ্দশাতে ২৫বৈশাখ রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করা শুরু হয়।” অন্যদিকে রবীন্দ্রজয়ন্তীর দিন বাড়ি থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিশেষ করে ফেসবুক লাইভে দুটি পর্বে ৪ ঘন্টার অনুষ্ঠান করবেন শিল্পী আলো কুন্ডু। “লকডাউনের রবীন্দ্রজয়ন্তী” অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়েই কবিগুরুকে স্মরণ করা হবে।  

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ