৩ জুনের টিকিট পেতে কমলাপুরে উপচেপড়া ভিড়

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৫ মে ২০১৯, ১০:৫৬

বাংলাদেশ রেলওয়ের চতুর্থ দিনের মতো অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রথম দুই দিন ট্রেনের অগ্রিম টিকিট ক্রয়ে ভিড় থাকলেও তৃতীয় দিন শুক্রবার ছিল টিকিটপ্রত্যাশীদের সর্বোচ্চ ভিড়। তবে আজ (শনিবার) চতুর্থ দিন জনস্রোতে পরিণত হয়েছে রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন।

আজ শনিবার (২৫ মে) সকাল ৯টায় কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ৯টি কাউন্টারে এ টিকিট বিক্রি শুরু হয়। আজ দেওয়া হচ্ছে ৩ জুনের অগ্রিম টিকিট। 

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে উত্তর-পশ্চিম জনপদ ও খুলনা অঞ্চলের টিকিট দেওয়া হচ্ছে। এ রেলওয়ে স্টেশন থেকে ১২টি ট্রেনের প্রায় ১৬ হাজারের কিছু বেশি টিকিট দেওয়া হবে। ২৬ হাজার ৭শ’ টিকিটের মধ্যে বাকিটা অনলাইনের জন্য বরাদ্দ রয়েছে। 

খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস, রাজশাহীগামী ধুমকেতু এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, সিল্ক সিটি এক্সপ্রেস, চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী পদ্মা এক্সপ্রেস, রংপুরগামী রংপুর এক্সপ্রেস, লালমনিরহাটগামী লালমনি এক্সপ্রেস, পঞ্চগড়গামী দ্রুতযান এক্সপ্রেস, নীলফামারীগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস, পঞ্চগড়গামী একতা এক্সপ্রেস ও সিরাজগঞ্জ সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেসে মোট আসন সংখ্যা ১১ হাজার ৬৯টি। 

কাঙ্ক্ষিত টিকিট পেতে অনেকেই মধ্যরাত থেকে লাইনে দাঁড়িয়েছেন, আবার কেউবা ভোরে দাঁড়িয়েছেন। টিকিটপ্রত্যাশীদের প্রতিটি লাইন এঁকেবেঁকে চলে গেছে স্টেশনের বাইরে। 

শৃঙ্খলা রক্ষা করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তৎপর রয়েছেন। দীর্ঘ লাইন থাকায় লাইন ঠিক রাখতে আনসার সদস্যদের হিমশিম খেতে দেখা গেছে।

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার আমিনুল হক বলেন, ঈদের সময় সবাই এসি টিকিট চান, কিন্তু আমাদের এসি সিট তো সীমিত। তাই সবাইকে দেওয়া সম্ভব হয় না। প্রতিটি লাইনে মানুষ সুশৃঙ্খলভাবে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করছেন। এ ছাড়া ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে যেন কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সে লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ রেলওয়ের নিজস্ব বাহিনী তৎপর রয়েছে।

গত বুধবার (২২ মে) থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে, যা চলবে আগামী ২৬ মে পর্যন্ত। যাত্রীদের সুবিধার্থে এবার ঢাকার ৫টি স্থান থেকে রেলের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। কমলাপুরে শুধু যমুনা সেতু দিয়ে সমগ্র পশ্চিমাঞ্চলগামী ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ