বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর বাণী

‘টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তির সুফল দেশের প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে দিতে হবে’

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ মে ২০১৮, ০০:০৩ | আপডেট : ১৭ মে ২০১৮, ০০:০৬

ঢাকা, ১৭ মে, এবিনিউজ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার গত সাড়ে নয় বছরে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তির সুফল দেশের প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে দিতে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে।

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার গত সাড়ে নয় বছরে টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তির সুফল দেশের প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে দিতে প্রযুক্তির অবকাঠামো উন্নয়ন, প্রায়োগিক উৎকর্ষ সাধন, ব্যাপক ব্যবহার নিশ্চিত করাসহ এ খাতে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস উপলক্ষে গতকাল বুধবার দেয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আজ দিবসটি পালিত হবে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘সবার জন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ইতিবাচক ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টি’

তিনি আশা করেন, দিবসটি পালনের মাধ্যমে দেশের সর্বস্তরের জনগণ টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন দিক বিশেষ করে তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে সৃষ্ট ‘কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা’ সম্পর্কে আরো জানতে পারবেন এবং এর সুফল ভোগ করবেন।

ইন্টারনেট ডেনসিটি বৃদ্ধি, সাবমেরিন ক্যাবলের ক্যাপাসিটি বৃদ্ধি, নতুন সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনসহ টেলিযোগাযোগ খাতের সেবাসমূহ আধুনিক ও যুগোপযোগী করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তথ্যপ্রযুক্তিবান্ধব নীতি প্রণয়ন করা হয়েছে। দেশের ৯৯ ভাগ এলাকা এখন মোবাইল নেটওয়ার্কের আওতায় এসেছে। দেশে ফোর-জি প্রযুক্তির নেটওয়ার্ক চালু করা হয়েছে। ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’ টেলিযোগাযোগ খাতের যুগান্তকারী উন্নয়ন ঘটাবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে অপটিক্যাল ফাইবার সংযোগ, প্রায় সকল উপজেলায় অপটিক্যাল ফাইবার কানেকটিভিটি, সকল জেলায় ‘জেলা তথ্য বাতায়ন’ এবং দেশের প্রতিটি ইউনিয়নে ‘ইউনিয়নে তথ্য ও সেবাকেন্দ্র’ প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে পারস্পরিক যোগাযোগকে দ্রুত ও সহজতর করা হয়েছে।

এসকল উদ্যোগ বাস্তবায়নের ফলে সরকারি সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়া সম্ভব হয়েছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ব্যবসাবাণিজ্য, সামাজিক যোগাযোগসহ প্রতিটি খাতে অমিত সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হয়েছে। তরুণ প্রজন্মের জন্য নতুন নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয়, বাস্তবতা।

প্রধানমন্ত্রী বিশ্ব টেলিযোগাযোগ ও তথ্য সংঘ দিবস এর সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ