বেলজিয়ামে ইউরোপের সর্ববৃহৎ মূর্তি দিয়ে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ অক্টোবর ২০১৮, ২০:১৬

বেলজিয়ামের ব্রাসেলস শহরে এ বছর উৎসব মুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়ে গেলো সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। চার দিন ব্যাপী দুর্গা পূজার এই আয়োজনটি ইউরোপের সবচেয়ে বড় দুর্গা প্রতিমা মূর্তি দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। ১৬ই অক্টোবর ব্রাসেলস ও ইউরোপীয় ইউনিয়নে নেপালের সম্মানীত রাষ্ট্রদূত শ্রী লোক বাহাদুর থাপা এই পূজা উৎসবের উদ্বোধন করেন।

ব্রাসেলস-এ গত পাঁচ বছর ধরে 'সম্মিলনী’ নামের বাঙ্গালী সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান এই দুর্গা পূজার আয়োজন করে আসছে। পূজার নজর কাড়া প্রতিমা মূর্তি, সুস্বাদু প্রসাদ এবং মনোরম সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এ আয়োজনের মূল আকর্ষণ।

২০১৮-এর দুর্গাপূজার প্রধান সমন্বয়কারী হিসেবে প্রতিবারের মতো এবারো মানিক পাল দায়িত্ব পালন করেন।  এ ছাড়া সংগঠনের নির্বাহী পরিষদের সভাপতি হিসেবে ড. দেবাশীষ সাহা, সহ-সভাপতি হিসেবে রাজর্ষি সন্যাল এবং সেক্রিটারির দায়িত্ব পালন করেছেন সব্যসাচী চক্রবর্তী। এছাড়াও বেলজিয়ামের বাঙ্গালী কমিউনিটির অন্যতম সংগঠক মানিক পালের সঙ্গে বিধান দেব, তপন রায়, তিলক দেব, চয়ন রায়, মিথুন রায়, শোভান গৌতম, তপধীর দেব, সঙ্গীতা চৌধুরী এবং কৌশতভ দত্ত-সহ বেলজিয়ামে বসবাসরত হিন্দু সম্প্রদায়ের আরো অনেকেই দুর্গা মায়ের প্রতি ভক্তি ও কমিউনিটির মানুষের সাথে একাত্বতা রেখে এই পূজার আয়োজনে অংশ নেন।

ব্রাসেলস-এ বাঙ্গালীর সংখ্যা খুব বেশি না হলেও দুর্গা পূজাতে প্রচুর লোকের সমাগম হয়ে থাকে। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের অনেক সনাতন ধর্মাবলম্বী বাঙ্গালীসহ ধর্ম, বর্ন নির্বিশেষে সকলেই এই পূজায় সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। পূজা আয়োজনকারীদের মধ্য থেকে চয়ন রায় জানান, "এখানে পূজার নিয়মাবলী পঞ্জিকার নির্দেশনা অনুযায়ী সুনিপুণভাবে পালন করা হয়। এবারের পূজায় প্রায় তিন থেকে চারশো ভক্তের সমাগম হয়েছে।"

পূজার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কলকাতার সুফী ও গজল গানের দল আশিক ব্রাদার্স-এর প্রধান গায়ক আশিক তার সুরের মূর্ছনায় ভক্তদের অভিভূত করেন।  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে কলকাতার আরো অনেক গুণি শিল্পীর অংশগ্রহণ পূজার আয়োজনকে দ্বিগুন আকর্ষণীয় করে তোলে।

এবিএন/রাজ্জাক/জসিম/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ