হার্শাল জিতলেন পার্পল ক্যাপ, অরেঞ্জ ক্যাপ রুতুরাজের

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১০:২১

ভালো কিছুর সম্ভাবনা জাগিয়ে আরও একবার অল্পেই থেমে গেছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর যাত্রা। আইপিএলের এবারের আসরের রানার্সআপ কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে এলিমিনেটর ম্যাচে হেরে চতুর্থ হয়েছে বিরাট কোহলির দল। তবে তার দলের চমক জাগানিয়া পেসার হার্শাল প্যাটেল হয়েছেন প্রথম, জিতেছেন সর্বোচ্চ উইকেটশিকারির পার্পল ক্যাপ। এবারের আসরে ১৫ ইনিংস বোলিং করে সর্বোচ্চ ৩২ উইকেট নিয়েছেন হার্শাল, যা আইপিএলের এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ড।

এদিকে আইপিএলে নিজের দ্বিতীয় আসরে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের অরেঞ্জ ক্যাপ পেয়ে গেছেন রুতুরাজ গাইকোয়াদ।

এতদিন ধরে আইপিএলের এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেটের রেকর্ডটি ছিল চেন্নাই সুপার কিংসের ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার ড্যারেন ব্রাভোর দখলে। তিনি ২০১৩ সালের আসরে চেন্নাইয়ে জার্সি গায়ে ১৮ ম্যাচ খেলে শিকার করেছিলেন ৩২টি উইকেট। সেরা বোলিং ফিগার ছিল ৪২ রানে ৪ উইকেট।

চলতি আইপিএলে বেঙ্গালুরুর হয়ে হার্শাল খেলেছেন ১৫টি ম্যাচ। যেখানে তার শিকার ব্রাভোর সমান ৩২টি উইকেট। তবে ব্রাভোর চেয়ে কম ম্যাচ খেলে ও কম রান খরচ করে ৩২ উইকেট নেওয়ায় রেকর্ডের তালিকায় এক নম্বরেই রাখা হয়েছে হার্শালকে। ব্রাভো ৩২ উইকেট নিয়েছিলেন ৪৯৭ রান খরচায়, হার্শালের খরচ হয়েছে ৪৫৯ রান।

এবারের আসরে বে ঙ্গালুরুর প্রথম ম্যাচেই চমক দেখিয়েছিলেন হার্শাল। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের বিপক্ষে নিয়েছিলেন ২৭ রানে ৫ উইকেট, যা তার ক্যারিয়ার সেরা বোলিং। মুম্বাইয়ের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচে হ্যাটট্রিকসহ নেন ৪টি উইকেট। সব মিলিয়ে ১৫ ম্যাচের মধ্যে মাত্র তিনটিতে উইকেটশূন্য থাকেন তিনি। বাকি ১২ ম্যাচেই নেন ৩২ উইকেট।

অন্যদিকে শুক্রবার আইপিএলের এবারের আসরের শেষ ম্যাচটি শুরুর আগে রুতুরাজের নামের পাশে ছিল ৬০৩ রান আর ফাফ ডু প্লেসির সংগ্রহ ছিল ৫৪৭ রান। অর্থাৎ দুজনের ব্যবধান ছিল ৫৬ রানের। কিন্তু ফাইনালে ৮৬ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংসে এই ব্যবধান মাত্র ২ রানে নামিয়ে এনেছেন সাবেক প্রোটিয়া অধিনায়ক।

চেন্নাইয়ের হয়ে ইনিংস সূচনা করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৬১ রান যোগ করেন দুই ওপেনার রুতুরাজ ও ডু প্লেসি। নবম ওভারে আউট হওয়ার আগে ৩২ রানের ইনিংস খেলেন রুতুরাজ। যার সুবাদে টপকে যান প্রথম পর্বে বাদ পড়ার আগে ৬২৬ রান করা লোকেশ রাহুলকে।

সুনিল নারিনের বলে সাজঘরে ফেরার পর চলতি আসরে রুতুরাজের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬৩৫ রান। পরে ডু প্লেসি খেলেন ৮৬ রানের ইনিংস। তবু ছাড়িয়ে যেতে পারেননি সতীর্থ ওপেনারকে। এই আসরে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৬৩৩ রান। মাত্র ২ রানের ব্যবধানে এবারের আসরের অরেঞ্জ ক্যাপ জিতেছেন রুতুরাজ।

অথচ আইপিএলে রুতুরাজের এটি মাত্র দ্বিতীয় মৌসুম। ২০২০ সালের আসরে চেন্নাইয়ে হয়ে ছয় ম্যাচে তিন ফিফটির সাহায্যে ৫১ গড়ে ২০৪ রান করেছিলেন ২২ বছর বয়সী তরূণ। আর এবার পুরো মৌসুম খেলে ছাড়িয়ে গেলেন সবাইকে। যাকে কি না মাত্র ২০ লাখ রুপিতে কিনেছিল চেন্নাই।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm