প্রীতি ম্যাচ ইতালিকে উড়িয়ে দিল ফ্রান্স

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ জুন ২০১৮, ১১:৪৭ | আপডেট : ০২ জুন ২০১৮, ১১:৫২

ঢাকা, ০২ জুন, এবিনিউজ : ফ্রান্স ও ইতালি ইউরোপের ফুটবল পরাশক্তির মধ্যে অন্যতম এ দুই দল। এবারের বিশ্বকাপে ফ্রান্স অন্যতম ফেভারিট। অথচ মূলপর্বে খেলা হচ্ছে না ইতালির। তাই বিশ্বকাপের আগে প্রীতি ম্যাচ খেলাটাই এখন দলটির জন্য সান্ত¦নার। তবে সেখানেও ব্যর্থ আজ্জুরিরা। অ্যালিয়েঞ্জ রিভিয়েরা মাঠে স্বাগতিক ফ্রান্সের মুখোমুখি হয়েছিল দলটি। তাতে ৩-১ গোলের পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে তাদের। আজ্জুরিদের হারিয়ে দিদিয়ের দেশমের শিষ্যরা বাড়তি আত্মবিশ্বাস নিয়েই যাবে রাশিয়া বিশ্বকাপে।

বাছাইপর্ব থেকে ছিটকে যাওয়া চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালির বিপক্ষে ফ্রান্সের শুরুটা ছিল দুর্দান্ত। ২৯ মিনিটের মধ্যে দুই গোলে এগিয়ে যায় এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম ফেভারিট দলটি। ভাগ্য বিরূপ না হলে ওই সময়ের মধ্যেই তারা পেতে পারতো আরেকটি গোল।

শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক খেলা স্বাগতিকরা এগিয়ে যায় ৮ম মিনিটে। ডান দিক থেকে গ্রিজমানের দারুণ ফ্রি-কিক দূরের পোস্টে ফাঁকায় পেয়ে লাফিয়ে ভলি করেন কিলিয়ান এমবাপে। সে প্রচেষ্টা গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলেও গোলমুখে আলগা বল পেয়ে অনায়াসে জালে ঠেলে দেন বার্সেলোনার ডিফেন্ডার উমতিতি।

২৭তম মিনিটে চেলসি মিডফিল্ডার এনগোলো কঁতের নিচু শট পোস্টে বাধা পায়। এর ২ মিনিট পরেই সফল স্পট কিকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আতলেতিকো মাদ্রিদের ফরোয়ার্ড গ্রিজমান। বাঁ-দিক দিয়ে একজনকে কাটিয়ে দ্রুত ডি-বক্সে ঢোকা আতলেতিকো মাদ্রিদ ডিফেন্ডার লুকা এরনঁদেজ ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিটি পায় তারা।

পাল্টা জবাব দিতে দেরি করেনি ইতালি। ৩৬তম মিনিটে ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে মারিও বালোতেল্লির ফ্রি-কিক গোলরক্ষক হুগো ইয়োরিস ঠেকানোর পর ফিরতি বল ডান পায়ের শটে ঠিকানায় পাঠান বোনুচ্চি।

দ্বিতীয়ার্ধের দ্বিতীয় মিনিটে আরও একবার ভাগ্যবঞ্চিত ফ্রান্স। দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে নিজেদের সীমানা থেকে বল পায়ে ক্ষিপ্র গতিতে ছুটে ডি-বক্সে এক জনকে কাটিয়ে আরেক জনকে কোনো সুযোগ না দিয়ে ডান পায়ের জোরালো শট নেন দেম্বেলে। কিন্তু বার্সেলোনা ফরোয়ার্ডের শট ব্যর্থ হয় ক্রসবারে লেগে। 

প্রতিপক্ষের রক্ষণে একচেটিয়া চাপ ধরে রেখে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে ফ্রান্স। ৫ মিনিট পর ডি-বক্সের বাইরে থেকে বায়ার্ন মিউনিখের মিডফিল্ডার কোরোঁতাঁ তোলিসোর নিচু শট পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়।

নিজেদের ঘর সামলে মাঝেমধ্যেই পাল্টা আক্রমণে উঠছিল ইতালি। কিন্তু আক্রমণভাগের ব্যর্থতায় বারবার হতাশ হতে হচ্ছিল তাদের। ৬৭তম মিনিটে ৬ গজ বক্সের বাইরে থেকে লক্ষ্যভ্রষ্ট হেড করেন বালোতেল্লি।

এরই মাঝে ৬৫তম মিনিটে দেম্বেলের চমৎকার এক গোলে ব্যবধান বাড়িয়ে নেয় ফ্রান্স। ডি-বক্সের কিনারা থেকে কোনাকুনি উঁচু শটে দূরের পোস্ট দিয়ে বল জালে পাঠান ২১ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড।

শেষ দিকে বদলি নামা মার্সেইয়ের ফরোয়ার্ড ফ্লোরিয়ান থাউভিনের ১৫ গজ দূর থেকে নেওয়া ভলি গোলরক্ষক রুখে দিলে ব্যবধান আর বাড়েনি।

আগামী ১৬ জুন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু হবে ফ্রান্সের। ‘সি’ গ্রুপে তাদের অন্য দুই প্রতিপক্ষ পেরু ও ডেনমার্ক।

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ