ভারতের হুমকিতেই পাকিস্তান যেতে নারাজ শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটাররা!

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২১:১১

নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে অনেক দিন ধরেই পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে হোম সিরিজ খেলতে হচ্ছে আরব আমিরাতে। তবে নিজেদের দেশে সিরিজ আয়োজনের জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে দেশটি। সবকিছু গুছিয়েও এনেছিল তারা। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ৯ অক্টোবর পর্যন্ত পাকিস্তানে গিয়ে তিনটি ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার কথা ছিল শ্রীলঙ্কা দলের।

তবে দলের ১০ জন খেলোয়াড় পাকিস্তানে গিয়ে খেলতে এরইমধ্যে অপারগতা জানিয়েছেন। আর তাদের এমন মতের কারণে খেলার মাঠের ইস্যু গিয়ে পড়েছে রাজনীতির মাঠে। কারণ পাকিস্তানি এক মন্ত্রীর দাবি ভারতের ‘হুমকির’ কারণেই শ্রীলঙ্কান খেলোয়াড়রা পাকিস্তানে যেতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। তবে তাদের এমন মতের পর এই সিরিজ থেকে শ্রীলঙ্কা সরে যাবে কিনা তেমন কোনো সিদ্ধান্ত দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়নি।

২০০৯ সালে লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের কাছাকাছি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট দলের ওপর পাকিস্তানি জঙ্গিরা আক্রমণ চালায়। ওই হামলায় লঙ্কান জাতীয় ক্রিকেট দলের ছয়জন সদস্য আঘাত পান। নিহত হন ছয় পাকিস্তানি পুলিশ ও দুই বেসামরিক নাগরিক। এরপর থেকে নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে দেশটিতে খেলতে যেতে অনীহা জানায় ক্রিকেট বিশ্বের দলগুলো। তবে সেই অবস্থা থেকে অনেকদিন ধরেই উত্তরণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে দেশটি।

এ মাসেই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু হওয়ার কথা। তবে সোমবার হুট করেই দেশটির অধিনায়কসহ ১০ জন খেলোয়াড় পাকিস্তান যেতে নিজেদের অস্বীকৃতি জানায়। অজুহাত হিসেবে তারা নিরাপত্তাকে সামনে আনলেও পাকিস্তানের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরীর দাবি ভারতের হুমকির কারণেই এই অনিচ্ছা দেখিয়েছেন তারা।

তার দাবি, পাকিস্তানে খেলতে গেলে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারদের আইপিএলে নেয়া হবে না এমন হুমকি দেয়ার কারণেই তারা এমন অস্বীকৃতি জানিয়েছেন। যদিও নিজের এমন যুক্তির পক্ষে তেমন কোনো তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করতে পারেননি এই রাজনীতিবিদ। তবে এর আগেও বেশকিছু ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করে আলোচনায় এসেছিলেন তিনি। সর্বশেষ ভারতের চন্দ্রযান-২ ‍নিয়ে এক টুইটের কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক সমালোচিত হন তিনি।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ