এই মুহূর্তে করোনার কারণে সব ক্রিকেটারই ‘সাসপেন্ডেড’ : সাকিব

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৯ এপ্রিল ২০২০, ১৮:৪০

ফাইল ফটো
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সেরা তারকা সাকিব আল হাসান পরিবারের সঙ্গে এখন আমেরিকায় অবস্থান করছেন। সেখানে থেকেই করোনাভাইরাস প্রতিরোধের পাশাপাশি সচেতনতাও গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন দেশের সেরা এই অলরাউন্ডার।

এদিকে আমেরিকায় অবস্থান করছেন বাংলাদেশের গর্ব এভারেস্টজয়ী ওয়াশফিয়া নাজনীন হায়দার। দুর্ভাগ্যজনকভাবে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ২১ দিন পার হয়ে গেলেও এখনো পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেননি তিনি। দেশের মানুষকে সচেতন করতে করোনায় আক্রান্ত অবস্থায় তার কী অবস্থা ছিল, তা জানাতে লাইভ চ্যাটে অংশ নেন তিনি।

যেখানে তিনি আমন্ত্রণ করেন বাংলাদেশের মিডিয়া জগতের তারকা মোস্তফা সরওয়ার ফারুকি, নুসরাত ইমরোজ তিশা, মিউজিসিয়ান গৌরব ও চিরকুট ব্যান্ডের ভোকাল সুমির মতো তারকাদের। সেই ভিডিও চ্যাটে অংশ নিয়েছেন সাকিবও।

ভিডিও চ্যাটে অংশ নিয়েই ওয়াশফিয়াকে মজাচ্ছলে সাকিব জিজ্ঞেস করেন, ‘ফোনের ভেতর কি করোনা ভাইরাস আসার কোনো সুযোগ আছে?’ সাকিবের এমন প্রশ্নে হেসে ওঠেন সবাই।

এরপরে ভিডিও চ্যাটের সকল অতিথি একে একে নিজের পরিচয় তুলে ধরেন। সাকিবের পালা এলে, এখানেও মজা করেই উত্তর দেন সাকিব। ক্রিকেট থেকে নিষেধাজ্ঞায় আছেন, সে কথা তুলে ধরে সাকিব বলেন, ‘সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের প্লেয়ার ছিলাম। এখন নিষেধাজ্ঞায় আছি।’

তবে শিগগিরই ক্রিকেটে ফিরবেন বলে আশায় আছেন সাকিব। তাঁর জন্য স্বস্তির বিষয়, করোনাভাইরাসের ভয়াবহতার জন্য বিশ্বের সব খেলাই এখন বন্ধ আছে। ফলে বেশি খেলা মিস করতে হবে না তাকে।

আর করোনায় ক্রিকেট বন্ধ আছে বলে, এই মুহূর্তে সব খেলোয়াড়ই তার মতো সাসপেন্ডেড হয়ে আছে জানিয়ে সাকিব বলেন, ‘আশা করি, তাড়াতাড়ি আবার ক্রিকেটে ফিরবো। তবে এখন এই মুহূর্তে করোনাভাইরাসের কারণে সব ক্রিকেটারই সাসপেন্ডেড হয়ে আছে।’

সাকিব বর্তমানে আমেরিকায় উইসকনসিনে নিজের বাসায় অবস্থান করছেন। সেখান থেকে বাংলাদেশের অসহায় মানুষদের সাহায্য করার জন্য ইতিমধ্যে তাঁর চ্যারিটি প্রতিষ্ঠান ‘দ্য সাকিব আল হাসান ফাউন্ডেশনের’ মাধ্যমে তিন ধাপে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। বিভিন্ন সময় ভিডিওবার্তায় সচেতনতাও ছড়িয়ে দিচ্ছেন।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ