বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কিনতে চায় সৌদি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬:১৪

সৌদি আরব, ভুটান ও নেপাল বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। 

গতকাল মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় মন্ত্রী এ কথা জানিয়ে বলেন, ভুটানে রপ্তানির জন্য আলোচনা চলছে। ইতোমধ্যে একটি চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়েছে। যা নেপালকে অনুপ্রাণিত করতে পারে। 

দেশে দ্রুত বর্ধনশীল ব্যান্ডউইথের চাহিদা মেটাতে একনেক সভায় ৬৯৩.২ কোটি টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশে তৃতীয় সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় সৌদি আরব, ভারত, নেপাল ও ভুটানের ব্যান্ডউইথ কেনার বিষয়টি উঠে আসে। 

টেলিযোগাযোগ বিভাগ সূত্রে জানা যায়, পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলোর বেশিরভাই পার্বত্য অঞ্চল এবং দুর্বল নেটওয়ার্ক সম্পন্ন হওয়ায় সেখানে মুম্বাই বা চেন্নাই থেকে ব্যান্ডউইথ পরিবহন খুবই ব্যয়বহুল। সেখানে বাংলাদেশ ত্রিপুরা রাজ্যে ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ রপ্তানি করছে। 

“আমরা যদি আরও ব্যান্ডউইথ রপ্তানি করতে চাই, আমাদের নতুন অ্যাক্সেস পয়েন্ট তৈরি করতে হবে না। আমরা কুয়াকাটা থেকে ভুটান ও নেপালে এবং কক্সবাজার থেকে পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলোতে ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করতে পারব,” যোগ করেন মোস্তাফা জব্বার। 

নতুন সাবমেরিন ক্যাবল স্থাপনের মাধ্যমে, বাংলাদেশ প্রতি সেকেন্ডে ৬ টেরাবাইট ব্যান্ডউইথ পাবে, যা ইন্টারনেটের গতি বাড়িয়ে তুলবে এবং দেশে ফাইভ-জি পরিষেবা চালু করতে সহায়ক হবে। 

২০১৬ সালের শেষ দিকেও বাংলাদেশ ৩০০ জিবিপিএসের ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করতো। বর্তমানে ১৬০০ জিবিপিএসের ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করা হচ্ছে। দেশের দুটি সাবমেরিন কেবলের ২৬০০ জিবিপিএসের ব্যান্ডউইথ সক্ষমতা রয়েছে। তৃতীয় ক্যাবলটি যুক্ত হলে এরসঙ্গে  আরও ৭২০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ সক্ষমতা যুক্ত হবে। 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ