মার্চে একাধিক কালবৈশাখীর আশঙ্কা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০:১৯

দেশের আবহাওয়া চলতি মাস থেকেই পরিবর্তন হবে। শীতের প্রকোপ কমে অতিদ্রুতই বৃদ্ধি পাবে তাপমাত্রা। পাশাপাশি কয়েকদিন স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত ও বজ্রঝড়, সঙ্গে শিলাবৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। আর মার্চে রয়েছে দুই বা ততোধিক কালবৈশাখী ঝড়ের আশঙ্কা। আবহাওয়া অধিদপ্তরের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাস এমন তথ্যই দিচ্ছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, চলতি ফেব্রুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকেই দ্রুত বাড়বে তাপমাত্রা। মার্চে সেটা পৌঁছে যেতে পারে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। পাশাপাশি ওই মাসে তীব্র কালবৈশাখী ও বজ্রঝড়ের সম্ভাবনাও রয়েছে। মার্চে দিনের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বেড়ে ৩৪ থেকে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত হতে পারে। তবে দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে হতে পারে ৩৭ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত।

বৃষ্টির পূর্বাভাসে বলা হয়, এ মাসে সামগ্রিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হতে পারে। দেশের কোথাও কোথাও এক থেকে দুদিন শিলাবৃষ্টি ও বজ্রবৃষ্টির সম্ভাবনাও রয়েছে। আর মার্চে উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে এক থেকে দুদিন মাঝারি বা তীব্র কালবৈশাখী এবং দেশের অন্যত্র দুই থেকে তিন দিন হালকা বা মাঝারি কালবৈশাখী হতে পারে। সঙ্গে শিলাবৃষ্টিরও সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ইতোমধ্যে এর প্রকোপ মোকাবিলায় আগে থেকেই কৃষকপর্যায়ে প্রস্তুতি নিতে বলেছে। কেন না এতে বিভিন্ন ফসলের বীজ ও আমের মুকুলের ক্ষতির সম্ভাবনা অনেক।

এ বিষয়ে আবহাওয়াবিদ শাহীনুর ইসলাম বলেন, ‘চলতি মাসের তুলনায় আগামী মাসের আবহাওয়া পুরোপুরি বিপরীত হবে। এ ছাড়া মার্চের প্রথম দিকে বিভিন্ন ঝড়ের পূর্বাভাস জানিয়ে দেওয়া হবে। তবে আশা করছি কোনো ধরনের বড় দুর্যোগের মোকাবিলা করতে হবে না আমাদের।’

এদিকে গতকাল রাজধানীতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৮ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর দেশে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল পটুয়াখালীতে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ১১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলতি মাসে দেশে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল বরিশালে, ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্র ছিল তেঁতুলিয়ায় ৬ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ