আজকের শিরোনাম :

পাবনা থেকে গরু না পেয়ে খাসি নিয়ে ঢাকায় ফিরল ক্যাটল ট্রেন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০২২, ১০:১৪

পাবনায় সাড়া ফেলতে পারেনি কাটল স্পেশাল ট্রেন। কোনো গরু না গেলেও, প্রথমদিকে পাবনা থেকে ঢাকা গেলো ১৫০টি খাসি। পর্যাপ্ত প্রচারণার অভাবে পাবনা থেকে কাঙ্ক্ষিত কুরবানির পশু পরিবহণ হচ্ছে না বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

বুধবার (৬ জুলাই) বিকেল সাড়ে চারটায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা ক্যাটল স্পেশাল ট্রেনটি রাত সাড়ে নয়টার দিকে নির্ধারিত স্টপেজ পাবনার চাটমোহর রেলস্টেশনে যাত্রাবিরতি করেনি।

কারণ হিসেবে জানা গেছে, এই স্টেশন থেকে কোনো পশু বুকিং হয়নি। অর্থাৎ কোনো খামারি এখান থেকে ট্রেনে ঢাকায় পশু পরিবহণে আগ্রহ দেখায়নি।

স্টেশর মাস্টার আসাদুজ্জামান বলেন, আসলে বুকিং হয় একটি ওয়াগন হিসেবে। একটি ওয়াগনে ২০টি কুরবানিযোগ্য গরু পরিবহণ করা যায়। সেখানে দু’চারটি গরুর জন্য তো পুরো ওয়াগন ভাড়া নিতে চাইবেন না কোনো খামারি বা ব্যবসায়ী। চাটমোহর থেকে ঢাকায় একটি ওয়াগন ভাড়া ৯ হাজার ২৩০ টাকা। অর্থাৎ গরু প্রতি খরচ পড়বে ৪৬২ টাকা।

আসাদুজ্জামান বলেন, প্রচার প্রচারণায় তাদের চেষ্টার ত্রুটি নেই। বিভিন্নভাবে খামারি ও ব্যবসায়ীদের ট্রেনে করে ঢাকায় কুরবানির পশু পরিবহনে উৎসাহিত করেছেন। লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। তাদের আশা, পরবর্তী ট্রিপ আগামী ৮ জুলাই চাটমোহর স্টেশন থেকে একটি ওয়াগনে কুরবানির পশু বুকিং হবে।

এদিকে চাটমোহর স্টেশন থেকে কুরবানির পশু বুকিং না হলেও, পার্শ্ববর্তী ভাঙ্গুড়া উপজেলার বড়ালব্রিজ স্টেশন থেকে দু’টি ওয়াগন বুকিং হয়।

বড়ালব্রিজ রেলস্টেশনের বুকিং সহকারী মেহেদী হাসান মামুন বলেন, কোনো গরু বুকিং না হলেও, এ স্টেশন থেকে দু’টি ওয়াগনে ১৫০টি খাসি ঢাকায় গেছে। দ্বিতীয় দিনে আরও বেশি গরু ও খাসি বুকিং হবে বলে আশা করেন তিনি।

চাটমোহরের কলেজ শিক্ষক ইকবাল কবীর রঞ্জু বলেন, খামারি ও ব্যবসায়ীদের খরচ সাশ্রয়ের কথা চিন্তা করে সরকার ভালো একটি উদ্যোগ নিয়েছে ক্যাটল স্পেশাল ট্রেন। কিন্তু এটি নিয়ে খামারি ও ব্যবসায়ী পর্যায়ে প্রচার-প্রচারণার যথেষ্ট অভাব ছিল। যেকারণে চাটমোহর স্টেশন থেকে কোনো পশুই ঢাকায় নিতে আগ্রহ দেখায়নি কেউ।

উল্লেখ্য, ‘চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী-ঢাকা (তেঁজগাও) রুটে স্বল্প ভাড়ায় কুরবানি যোগ্য পশু পরিবহণে ক্যাটেল স্পেশাল ট্রেনে ৫টি ওয়াগন রয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে বুধবার (৬ জুলাই) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ট্রেনটি উদ্বোধন করেন রেলওয়ের পশ্চিমের সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা একেএম নুরল আলম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মোস্তাফিজুর রহমান। প্রথমদিনে ট্রেনটিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ১৮টি গরু আর ৫টি ছাগল ঢাকায় পরিবহন করা হচ্ছে।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ