তেলের দাম বৃদ্ধি : বাম ছাত্র সংগঠনগুলোর বিক্ষোভে পুলিশের লাঠিচার্জ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০২২, ০৯:৫৬ | আপডেট : ০৮ আগস্ট ২০২২, ১০:০৮

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বাম ছাত্র সংগঠনগুলোর বিক্ষোভ সমাবেশে পুলিশি হামলার অভিযোগ উঠেছে। তবে পুলিশ বলছে, প্রথমে বাম ছাত্র সংগঠনের কর্মীরাই হামলা করে। হামলায় উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ ঘটনার পরপরই শাহবাগ মোড়ে সতর্ক অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। 

পুলিশের হামলার প্রতিবাদে সোমবার বেলা ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে বিক্ষোভ মিছিল কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে বাম ছাত্রসংগঠনগুলো। 

আহত নেতাকর্মীদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাম ছাত্র সংগঠনগুলো রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি থেকে মিছিল নিয়ে শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। শাহবাগে বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে হঠাৎ পুলিশের সঙ্গে কথা কাটাকাটি শুরু হয় নেতাকর্মীদের। একপর্যায়ে রমনা জোনের এডিসি হারুন-অর-রশিদের নেতৃত্বে লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। এ সময় বিক্ষোভ মিছিল থেকেও পুলিশকে লক্ষ্য রেখে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। 

পুলিশের একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রমনা থানার এসি বায়েজিদ এবং শাহবাগ থানার এসআই রাশেদ আহত হয়েছেন। 

পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন—সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের দপ্তর সম্পাদক সালমান সিদ্দিকী, কর্মী মশিউর রহমান, মিশাল ত্রিপুরা, বিপ্লবী ছাত্রমৈত্রীর সংগঠজ জাবির আহমেদ জুবেল, সামি আব্দুল্লাহ, ছাত্র ইউনিয়নের ঢাকা নগরের সংগঠক শাহাদাত হোসেন, ঢাকা নগরের কর্মী জাওয়াদ হোসেন, শান্তাসহ প্রায় ২০ জন। 

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের দপ্তর সম্পাদক সালমান সিদ্দিকী বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করছিলাম। তখন পুলিশ আমাদের নেতাকর্মীদের সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি শুরু করে আমাদের ওপর হামলে পড়ে। আমাদের নারী নেতাকর্মীদের পুলিশ হেনস্থা করে; নারী পুলিশ সদস্য থাকলেও পুরুষ পুলিশ সদস্যরা ন্যক্কারজনকভাবে আমাদের নারী নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে যা অত্যন্ত নিন্দনীয়। আমরা এ হামলার প্রতিবাদে আগামীকাল (সোমবার) বেলা ১২টার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন থেকে বিক্ষোভ মিছিল করব।’ 

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ