আবেগে কেঁদে দিলেন ইউএনও

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:৫৯

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায়  বুদ্ধিজীবী শহীদের স্মৃতিচারন করতে যেয়ে আবেগে কেঁদে ফেলেন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া জেরিন। তিনি বলেন, আমি স্বাধীনতা যুদ্ধ দেখিনি। বই পুস্তক ও টিভি স্ক্রিনে যে চিত্র দেখেছি তা সত্যিই ভয়াবহ। আবেগপ্লুত হয়ে তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা বিজয়ের সূর্য যখন উদয় হবে ঠিক তার কয়েকদিন আগে বাংলাদেশ কে মেধাশূণ্য করার জন্য পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী ও তাদের মিত্ররা দেশের এসব সূর্য সন্তানকে নির্মম ভাবে হত্যা করে।

আজ মঙ্গলবার সকালে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি কথাগুলো বলতে যেয়ে আবেগপ্লুত হয়ে কেঁদে ফেলেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাদিয়া জেরিনের সভাপতিত্বে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, ঝিনাইদহ-৪ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য ও কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আনোয়ারুল আজীম আনার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম জাহাঙ্গীর সিদ্দিক ঠান্ডু।

সভায় শুরুতে কোরআন তেলওয়াত ও গীতা পাঠ করে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

এছাড়া শহীদ বুদ্ধিজীবী ও তাদের জীবনী নিয়ে আলোচনা করেন, কালীগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহানাজ পারভিন, কালীগঞ্জ থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মাহফুজুর রহমান, সরকারি মাহতাব উদ্দীন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আশরাফুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার হেলাল উদ্দীন সরদার, প্রভাষক সুব্রত নন্দী, মহিলা কলেজের প্রফেসর জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মধুসূদন সাহা, সোনার বাংলা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালনক শিবুপদ বিশ্বাস, সাংবাদিক নয়ন খন্দকার, জামির হোসেন প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আনোয়ারুল আজীম আনার বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে বুদ্ধিজীবীদের অবদান অবিস্মরনীয়।

তিনি আরো বলেন, এখন প্রতিটি ইউনিয়নে যেমন মুক্তিযোদ্ধাদের নামের তালিকা খোদায় করে রাখা হচ্ছে তেমনিভাবে বুদ্ধিজীবীদের নামের তালিকা খোদায় করে সারা দেশে রাখার প্রস্তাব সংসদে রাখবেন। এছাড়া কালীগঞ্জ শহরে বুদ্ধিজীবীদের একটি মুর‌্যাল নির্মাণের চেষ্টা করবেন।

এবিএন/নয়ন খন্দকার/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ