আজকের শিরোনাম :

ঝিনাইদহে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, আহত ১০

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:০১

ঝিনাইদহে সদর উপজেলার হাটগোপালপুরে ৪র্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সতন্ত্র ও নৌকা প্রতিকের প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। সেসময় নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুরের পাল্টাপাল্টি অভিযোগ প্রার্থীদের।

গতকাল মঙ্গলার রাতে সদর উপজেলার পদ্মাকর ইউনিয়নের হাটগোপালপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। ভাংচুর করা হয় ৩ টি মোটর সাইকেল।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার রাতে পদ্মাকর ইউনিয়নের লৌহজঙ্গা গ্রামে নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ নিজামুল গণি লিটু ও সতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিকাশ বিশ্বাসের সমর্থকদের মাঝে নির্বাচনী প্রচারণার সময় হাতা-হাতি হয়। এক পর্যায়ে রাত ১১ টার দিকে উভয় পক্ষের লোকজন হাটগোপালপুর বাজারে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু করে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। এসময় ভাংচুর করা হয় নৌকা ও সতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচন কার্যালয়সহ ৩ টি মোটর সাইকেল।

নৌকা প্রতিকের চেয়ারম্যান প্রার্থী সৈয়দ নিজামুল গণি লিটু বলেন, মঙ্গলবার রাতে আমার সমর্থকরা লৌহজঙ্গা গ্রামে ভোটের প্রচারনা করছিল। এমন সময় সতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিকাশ বিশ্বাসের সমর্থকরা তাদেরকে মারপিট করে। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এসময় সতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন আমার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করে।

সতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী বিকাশ বিশ্বাস বলেন, মঙ্গলবার রাতে আমি নির্বচনী কাজে অচিন্তনগর গ্রামে আলোচনায় ছিলাম। এমন সময় খবর পেলাম নৌকা প্রতিকের সমর্থকরা আমার লোকজনের উপর হামলা চালিয়ে কয়েকজনকে আহত করে। পরে নির্বাচনী কার্যালয় ও ৩ টি মটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়।

ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি শেখ মোঃ সোহেল রানা জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
বর্তমানে পস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এঘটনায় উভয় পক্ষের লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থ্যা গ্রহন করা হবে।
 

এবিএন/নয়ন খন্দকার/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ