কালিগঞ্জে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বিদ্যালয়ে পরিদর্শনে এসে দেখলেন বন্ধ, কৈফিয়ত তলব

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৩ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:২৯

ঘটনাস্থল সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার পীরগাজন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সময় দুপুর ১টা ৩০ মিটিন, বিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পা রাখলেন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: রুহুল আমীন। শ্রেনি কক্ষে যেতেই প্রত্যক্ষ করলেন তালাবদ্ধ, দেখলেন প্রতিটি শ্রেনি কক্ষ তালাবদ্ধ, শুন্যের নিরবতা বিরাজ করছে বিদ্যালয় প্রাঙ্গন। অফিস কক্ষ সেটিও তালায় পুর্ণতা। অথচ এই সময়টিতে বিদ্যালয় থাকবে শিক্ষার্থী, শিক্ষকের উপস্থিতি। প্রানের সঞ্চারের ঘাটতি থাকবে না, ক্লাস চলবে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের প্রধান অবাক বিস্ময়ে হতভম্ব, তিনি যেন বিশ্বাসই করতে পারছেন না, বিরক্ত, বিব্রত, বিড়ম্বনায়, আড়ষ্টতায় দাড়িয়ে থাকলেন। এবার তিনি ফোন করলেন সংশ্লিষ্ট ক্লাষ্টারের দায়িত্ব প্রাপ্ত সহকারি শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমানকে। খুজলেন প্রধান শিক্ষক সহ অপরাপর শিক্ষকদের। ততোক্ষনে অভিভাবক সহ এলাকাবাসি উপস্থিত হলেন। জেলা শিক্ষা অফিসারের পরিদর্শন, তদারকিকে সম্মান জানালেন, দায়িত্বশীলতাকে প্রশংসা করলেন। কিন্তু জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: রুহুল আমীন খুশি হলেন না, তিনি উপস্থিত অভিভাবকদের প্রতি সম্মান আর দায়িত্বশীলদের দায়িত্বহীনতার জন্য কৈফিয়ত তলবের নির্দেশ দিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার কে।

 এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রুহুল আমীন দৃষ্টিপাতকে জানান শিশুরা, শিক্ষার্থীরা আমাদের সন্তান তাদের প্রতি অবিচার, তাদের পড়ালেখার প্রতি দায়িত্বহীনতা কোন অবস্থাতেই কাম্য নয়। রাষ্ট্রের অর্থে আমরা বেতন ভোগ করি অথচ কেউ কেউ রাষ্ট্রের সাথে প্রতারনা করছেন, আইনানুগ ব্যবস্থাই শেষ কথা। সর্ব শেষ খবরে জানা গেছে সংশ্লিষ্ট ক্লাষ্টারের দায়িত্বপ্রাপ্ত সহকারি শিক্ষা অফিসার ও প্রধান শিক্ষককে কালিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার কৈফিয়ত তলব করেছেন এবং আগামী তিন দিনের ভিতরে জবাব দেওয়ার জন্য বলেছেন।
 

এবিএন/রফিকুল ইসলাম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ