আজকের শিরোনাম :

বরিশালের বাজার গুলোতে যেন করোনার সংক্রমণ নেই

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৫১

* মুখে নেই মাস্ক, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

দেশে মহামারি করোনাভাইরাসের তৃতীয় ঢেউ। নতুন বছরের শুরু থেকে বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলে লাফিয়ে লাফিয়ে প্রতিদিনই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। সংক্রমণ মোকাবিলার জন্য সরকার ১১ দফা নির্দেশনা দিয়ে বিধিনিষেধ কার্যকর করছে। কিন্তু এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও বরিশালের মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। নজর নেই বিধিনিষেধের দিকেও। তবে বরিশাল শহরের মৎস্য পাইকারি বাজার ও কাচা বাজার গুলোতে নিয়মিত কঠোর ভাবে জনগনকে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে মোবাইল কোর্টের অভিযান পরিচালনায় তেমন একটা ভূমিকা দেখা যাচ্ছে না।

আজ শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) সকালে বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড মৎস্য বাজার ও কাচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, অনেক যাত্রীর মুখে মাস্ক নেই। অনেকের মাস্ক থুতনিতে ঝুলানো। হ্যান্ড স্যানিটাইজার নেই কোন মানুষের কাছে। কেউ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার প্রতি মনোযোগী নয়। সবাই ঘা ঠাসাঠাসি করে কেনা কাটা করছেন। তাদের মধ্যে মহামারি করোনাভাইরাসের বিষয়ে মনে হয় কিছু জানা নেই। বাজারে নারী ও পুরুষের ভিড় তাও চোখে পড়ার মত। দেখা মেলে প্রায় সব বয়সী মানুষের সাথে। তাদের কেউ মাস্ক পরছেন, কেউ মুখ থেকে মাস্ক নামিয়ে রেখেছেন। আবার কেউ মাস্ক ছাড়াই বাজার করছেন।

এসময় কথা হয় মাছ ব্যবসায়ী সোহেলের সঙ্গে। মুখে মাস্ক না পরার বিষয়ে জিজ্ঞেস করতেই তিনি বলেন, সকালে তাড়াহুড়া করে বাসা থেকে চলে আসছি। তাই মাস্ক আনতে মনে ছিলোনা। তবে করোনা বাড়ছে শুনছি। করোনা হওয়ার ভয় আছে কি না জানতে চাইলে সোহেল বলেন, গত বছর করোনায় অনেক মানুষ মারা গেছে, ভয় তো আছে। তবে আমাদের মত গরীব অসহায় মানুষকে করোনা ছাড় দেন। কারন আমরা দিন খেটে খাওয়া মানুষ। আয় না করলে সংসার চলে না। তাই সঠিক ভাবে সরকারি নিয়ম মেনে চলতে পারছি না।

এদিকে আরটি-পিসিআরল্যাবের সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘন্টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে বর্তমানে ১৬ জন রোগী ভর্তি রয়েছে। তবে কেউ মারা মৃত্যু হয়নি। তার মধ্যে ৩ জনের পজেটিভ পাওয়া গেছে। গত ২৪ ঘন্টায় ভর্তি হয়েছেন ৪ জন তার মধ্যে ১ জন পজেটিভ। এছাড়াও গত ২৪ ঘন্টায় শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের আরটি-পিসিআরল্যাবের ১২৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় নেগেটিভ আসছে ৮৩ জন। আর পজেটিভ আসছে ৪১ জনের। এনিয়ে সনাক্তের হার দাড়িয়েছে ৩২.০৮ ভাগ। এমন ভীতিকর সংক্রমণ পরিস্থিতিতেও বরিশালের পোর্ট রোড মৎস্য পাইকারী বাজারে স্বাস্থ্যবিধি কার্যকরে সমিতির কর্তৃপক্ষের তোড়জোড় দেখা যাচ্ছে না।  

স্বাস্থবিধি নিশ্চিত করার বিষয়ে মাছ বাজারে আসা শারমিন নামে এক মহিলা বলেন, মাছ বাজারে প্রবেশের সময় মাস্ক ছাড়া কাউকে ঢুকতে না দিলেই আমি মনে করি তাহলে সবাই পরবর্তীতে মাস্ক পড়ে বাজারে আসবেন। তিনি আরো বলেন সতর্ক থাকা আমাদের সবার জন্য ভালো। তবে দুই এক জনের জন্য সবাই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হবো। এটা হতে দেওয়া যাবে না। বরিশাল জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এরই ধারাবাহিকতায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা চলমান। জনগণের শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমাদের এই কার্যক্রম কঠোর হবে।


এবিএন/আরিফ হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ