প্রধানমন্ত্রীর ১০টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে নড়িয়ায় দিনব্যাপী কর্মশালা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ জুন ২০২২, ১৪:৫৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি উদ্ভাবনী উদ্যোগ নিয়ে শরিয়তপুরের নড়িয়ায় আজ সোমবার দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসন ও গর্ভন্যান্স ইনোভেশন ইউনিটের সহযোগিতায় নড়িয়া উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ রাশেদউজ্জামানের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি অংশ নেন জেলা প্রশাসক  মো. পারভেজ হাসান।

প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ প্রান্তিক পর্যায়ে বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ এবং নতুন সম্ভাবনা চিহ্নিত করার পাশাপাশি উদ্যোগসমূহের বহুল প্রচারে করণীয় নির্ধারণ বিষয়ে সুপারিশ প্রণয়নের উদ্দেশ্যে কর্মশালার আয়োজন করা হয়। 

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ ১০টি উদ্যোগের বিষয়ক কর্মশালার সেই ১০টি পয়েন্টকে ১০টি গ্রুপের মাধ্যমে ভাগ করে ওয়ার্কশপ করা হয়। 

প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ ও ১০টি উদ্যোগ- পদ্মা: নারীর ক্ষমতায়ন,  মেঘনা : পরিবেশ সুরক্ষা, যমুনা : শিক্ষা সহায়তা, কীর্তিনাশা: পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, সুরমা: ডিজিটাল বাংলাদেশ, মধুমতি: কমিউনিটি ক্লিনিক ও শিশুর বিকাশ, পায়রা: বিনিয়োগ বিকাশ, কর্ণফুলী: পরিবেশ সুরক্ষা, ধানসিঁড়ি : সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, আড়িয়াল খাঁ : সবার জন্য বিদ্যুৎ।

দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কর্মশালায় নড়িয়া পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন বেপারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা আক্তার, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. রুহুল আমিন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. রোকনুজ্জামান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শফিকুল ইসলাম রাজীব, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ রায়, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ইকবাল মুনসুর, নড়িয়া বিহারী লাল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিন্টু চন্দ্র রায়সহ উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান-জনপ্রতিনিধি, দপ্তর প্রধান, পুলিশ, সাংবাদিক, ইমাম- পুরোহিত সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ ১০০ জন অংশ নেন। 

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা যেমন আমাদের  সোনালি অতীতকে স্মরণ করিয়ে দেয়,  তেমনি প্রধানমন্ত্রীর ১০টি বিশেষ উদ্যোগ আমাদের  সোনালি ভবিষ্যতের সম্ভাবনাও জাগিয়ে দিয়েছে। এর মাধ্যমে আমাদের জীবন, সমাজ ও  দেশকে ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত ও স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়তে শক্তি  জোগাবে।

এবিএন/এসএ/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ