আজকের শিরোনাম :

অবশেষে ঝালকাঠির কচুয়া-বেতাগী ফেরি সার্ভিস চালু

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৭ জুলাই ২০২২, ১০:৪৬

র্দীঘ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ঝালকাঠির কাঠালিয়া উপজেলার কচুয়া-বেতাগী নৌপথে ফেরিঘাট ও ফেরি সার্ভিস চালু হয়েছে।

বুধবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু।

ফেরি সার্ভিস চালু হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের, বিশেষ করে পটুয়াখালী, কুয়াকাটা, বরগুনা, বেতাগী, কাঠালিয়া, রাজাপুর, ঝালকাঠি, বরিশাল, বেকুটিয়া, খুলনা, পিরোজপুর, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা, গোপালগঞ্জসহ বিভিন্ন এলাকায় খুব সহজে যাতায়াত করতে পারবেন যাত্রীরা।

জানা গেছে, ঝালকাঠি সড়ক বিভাগের অধীনে কাঠালিয়ার বীণাপানি, কচুয়া, বেতাগী, মির্জাগঞ্জ, পটুয়াখালী পর্যন্ত ছয় কিলোমিটার নৌপথে এ নতুন ফেরিঘাট স্থাপন করা হয়েছে। গত ৩১ মে এই নৌপথে যানবাহনের টোলের পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়েছে। টোল নির্ধারণ করা হয়েছে ট্রেইলার ২৫০, হেভি ট্রাক ২০০, মিডিয়াম ট্রাক ১০০, বড় বাস ৯০, মিনি ট্রাক ৭৫, কৃষিকাজে ব্যবহৃত যানবাহন ৬০, মিনিবাস-কোস্টার ৫০, মাইক্রোবাস ৪০, ফোর হুইল যানবাহন ৪০, সিডান কার ২৫ এবং ৩-৪ চাকার মোটরাইজড যান ১০ ও মোটরসাইকেল/সাইকেল/রিকশা/ভ্যান ৫ টাকা হারে টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে কচুয়া-বেতাগীর মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ছিল নৌকা। বিষখালী নদীতে এই নৌকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করতেন নদীর দুই তীরের বাসিন্দাসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষ। তাদের দুর্ভোগ লাঘবে স্থানীয় শৌলজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. মাহামুদ হোসেন রিপনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সওজ একটি ফেরি চলাচলের ব্যবস্থা করে। ফেরিটি উদ্বোধনের পর থেকেই চলাচল শুরু করায় আনন্দ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। এতে দুই জেলার মানুষের মেলবন্ধন তৈরি হয়েছে বলেও জানান তারা।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ