আজকের শিরোনাম :

নারায়ণগঞ্জে পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ: পুলিশের মামলায় আসামি ৮৭১

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৩:২৯

নারায়ণগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় আরও একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করে। মামলায় বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের ৭১ জনের নাম উল্লেখসহ ৭০০ থেকে ৮০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

আসামির তালিকায় জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবি, সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী আব্দুর সবুর সেন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল আল ইউসুফ খান টিপু, বন্দর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল, বিএনপি নেতা হাসান আহমেদ, যুবদল নেতা জাহিদ হাসান রোজেল, মাজাহারুল ইসলাম জোসেফসহ ৭১ জন বিএনপির নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে মামলায়।

শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) রাতে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আনিচুর রহমান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, পুলিশের ওপর হামলা, পুলিশ বক্স ভাঙচুর, সরকারি কাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। আটক ১০ জনকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে নারায়ণগঞ্জে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর র‌্যালিতে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে নিহত যুবদল কর্মী শাওনের বড় ভাই মিলন হোসেন বাদী হয়ে বিএনপির অজ্ঞাত ৫ হাজার জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছিলেন সদর মডেল থানায়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আমীর খসরু জানান, ‘বৃহস্পতিবার রাতে শাওনের দাফন শেষে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। মামলায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের ছোড়া ইট ও গুলির আঘাতে গুরুতর জখম হয়ে তার ভাই মারা গেছেন বলে বাদী উল্লেখ করেছেন।’

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) বিএনপির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরের ডিআইটিতে মিছিলে বিএনপি ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের সময় নিহত হন শাওন প্রধান (২০)। তিনি নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার এনায়েতনগর ও বক্তাবলী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী পূর্ব গোপালনগরের প্রয়াত সাহেব আলীর ছেলে।

পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, শাওন ‘রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নন’। অপরদিকে বিএনপি নেতারা দাবি করেছেন, সক্রিয় কর্মী শাওন বক্তাবলী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড যুবদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে ময়নাতদন্তের পর রাত সাড়ে ১২টায় কড়া পুলিশ প্রহরায় তাকে দাফন করা হয়। তারপরই নিহতের ভাই নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম/পিংকি

এই বিভাগের আরো সংবাদ