আজকের শিরোনাম :

পুলিশের অনুষ্ঠানে বেলুন বিস্ফোরণ, তদন্ত কমিটি গঠন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪:৪৪

গাজীপুর মহানগর পুলিশের (জিএমপি) চার বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ওড়ানোর জন্য আনা গ্যাসবেলুন বিস্ফোরণে কলকাতার কমেডি শো মিরাক্কেল চ্যাম্পিয়ন আবু হেনা রনি ও পুলিশ সদস্যসহ পাঁচজন দগ্ধ হওয়ার ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জিএমপির ডিসি (অপরাধ উত্তর) আবু তোরাব মোহাম্মদ শামসুর রহমানকে প্রধান করে এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন—জিএমপির এডিসি (উত্তর) রেজনোয়ান আহমেদ, এসি (প্রসিকিউশন) ফাহিম আশজাদ ও মেট্রো সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম।

আজ শনিবার সকালে জিএমপির সহকারী কমিশনার (ডিবি মিডিয়া) আবু সায়েম নয়ন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান, কমিটিকে আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে গাজীপুর জেলা পুলিশ লাইনস মাঠে (জিএমপি) চার বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত নাগরিক সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উদ্বোধনের কিছুক্ষণ পরই গ্যাসবেলুন বিস্ফোরণে কৌতুক অভিনেতা আবু হেনা রনিসহ পাঁচজন দগ্ধ হন। দগ্ধ ও আহত অন্যরা হলেন মোশাররফ হোসেন, জিল্লুর রহমান, ইমরান হোসেন ও রুবেল হোসেন। তাঁরা সবাই পুলিশের কনস্টেবল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার গাজীপুর পুলিশ লাইনস মাঠে নাগরিক সম্মেলন ও সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থলের পাশেই মঞ্চে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। গাজীপুর পুলিশ লাইনসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গাজীপুর মহানগর পুলিশের কমিশনার মোল্লা নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মোহাম্মদ আখতার হোসেন। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ।

এ ছাড়া পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, গাজীপুর সিটির ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান কিরণ, জেলা প্রশাসক আনিসুর রহমানসহ বিপুলসংখ্যক অতিথি উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আয়োজিত অনুষ্ঠানের মূল মঞ্চের বাইরে উদ্বোধন মঞ্চ স্থাপন করা হয়। শুক্রবার বিকেলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অন্য অতিথিদের সঙ্গে নিয়ে উদ্বোধন মঞ্চ উঠে অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এ সময় মূল মঞ্চের পশ্চিম পাশে অনেকগুলো আতশবাজি ফোটানো হয়। আতশবাজি ফোটানোর সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা পায়রা উড়িয়ে দেন। এরপর জিএমপি চার বছর পূর্তি লেখা একটি প্ল্যাকার্ডসহ অনেকগুলো গ্যাসবেলুন একসঙ্গে ওড়ানোর চেষ্টা করেলে সেগুলো আকাশে ওড়েনি। পরে অতিথিরা বেলুন না উড়িয়েই সেখান থেকে মূল মঞ্চের সামনে নির্ধারিত আসন গ্রহণ করেন।

আরও জানা যায়, পরে কয়েকজন পুলিশ সদস্য বেলুন বিক্রেতাকে ডেকে বেলুন না ওড়ার জন্য ধমক দেন। সেখানে বেলুন বিক্রেতা নিজেই বেলুনগুলো ওড়ানোর চেষ্টা করেন। এ সময় তিনিসহ অন্যরা বেলুনগুলোর বাঁধন খুলে আলাদা করতে চান। তখন কেউ একজন আগুন দিয়ে বেলুনের সুতা পোড়ানোর জন্য গ্যাসলাইট দিয়ে আগুন জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। কিন্তু আতশবাজির শব্দের কারণে অনেকই বেলুন বিস্ফোরণের ঘটনাটি বুঝতে পারেননি। বেলুনের বিস্ফোরণের সময় পাশে থাকা কৌতুক অভিনেতা আবু হেনা রনিসহ পাঁচজন দগ্ধ হন। তাৎক্ষণিকভাবে অন্য পুলিশ সদস্যরা তাঁদের গায়ে পানি ঢেলে আগুন নিভিয়ে দ্রুত তাঁদের গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মনিরা আক্তার জানান, অভিনেতা আবু হেনা রনির শরীরের ৪০ ভাগ, মোশাররফ হোসেনের ৩০ ভাগ ও অন্য ব্যক্তিরা ২০ ভাগ দগ্ধ হয়েছেন। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তিনজনকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. রফিকুল ইসলাম জানান, পাঁচজনকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। আশঙ্কাজনক অবস্থায় আবু হেনা রনি, মোশারফ ও রুবেল মিয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। অন্যরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

এই বিভাগের আরো সংবাদ