রচনা ফিরছেন ‘দিদি নম্বর ১’-এর সেটে

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২০:০৭

কলকাতার জনপ্রিয় টিভি রিয়্যালিটি শো দিদি নাম্বার ওয়ান। এই শো দুই বাংলায় বেশ জনপ্রিয়। এই শোয়ের নাম নিলেই মাথায় প্রথমে যার নাম মাথায় আসে তা হলো রচনা ব্যানার্জি। বাবার আকস্মিক প্রয়াণের পর শো থেকে বিরতি নেন রচনা।

একাধারে ১০ বছরের সফল সঞ্চালক রচনা। অনুষ্ঠান থেকে নিয়েছিলেন সাময়িক বিরতি। কিন্তু এত সহজে কী করে ছাড়েন তার অনুরাগীরা! দর্শকদের দাবি মেনে তাই জি বাংলার পর্দায় জনপ্রিয় শো তে ফিরছেন রচনা।

জি বাংলার ইনস্টাগ্রাম পেজ থেকে রচনা নিজেই বলেন সে কথা। বলেন, ‘বাবার আকস্মিক মৃত্যু সাময়িক অবশ করে দিয়েছিল। কারণ, আমার জীবনের সবচেয়ে প্রিয় মানুষ ছিলেন তিনিই।’ একই সঙ্গে পারলৌকিক কাজেরও দায়িত্ব ছিল তার উপরে। এই অবস্থায় শো-তে এসে অংশগ্রহণকারিণীদের সঙ্গে হাসি-ঠাট্টায় মেতে ওঠা তার পক্ষে সম্ভব ছিল না। তাই তিনি ছুটি নিয়েছিলেন।

প্রায় দশ বছর ধরে দর্শকদের মন জয় করে আসছে ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’। এর আগে কিছুদিনের জন্য রচনার জায়গায় সঞ্চালনার দায়িত্ব সামলে ছিলেন অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়। তবে ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’-এ দেবশ্রীর সঞ্চালনা ছাপ ফেলতে পারেনি দর্শকদের মনে। তাই আবার রচনাকেই ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয় প্রযোজক সংস্থা। দর্শকরা যেন অনুষ্ঠান উপভোগ করেন, সেটাই লক্ষ্য রাখতে হবে। এমনটাই পরামর্শ রচনার। ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’-এর আসল ইউএসপিই হল দর্শকরা এই অনুষ্ঠান দারুণ উপভোগ করেন।

গত ১৫ নভেম্বর পিতৃহারা হয়েছেন অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জি। রচনার কাছে তার বাবা ছিলেন বন্ধুসম। সঠিক অর্থে বলতে গেলে রচনার কাছে তার বাবা রবীন্দ্রনাথ ব্যানার্জি ছিলেন বন্ধু ও গাইড। তাই তো বাবাকে হারিয়ে হঠাৎই অনেকটাই অগোছালো হয়ে উঠেছেন রচনা। কারণ, বাবাই তো তাকে শিখিয়ে ছিলেন জীবন গোছাতে। সেই মানুষটিই আর তার পাশে নেই।

রচনা ব্যানার্জি ক্যারিয়ার শুরু করেন মডেলিং দিয়ে। মিস কলকাতা হয়েছিলেন রচনা। যদিও পরে মিস ইন্ডিয়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু মুকুট জিততে পারেননি। সে বছর মিস ইন্ডিয়া হন মধু সাপ্রে।

তারপর থেকে শুরু রচনার অভিনয় জীবনের। তবে তিনি অভিনয় করলেও তার শর্ট টু ফেম সিনেমা হল চিদানন্দ দাশগুপ্ত পরিচালিত ছবি ‘আমোদিনী’। শুধু বাংলা নয়, রচনা ওড়িয়া, তামিল, তেলুগু, কন্নড় ও হিন্দি সিনেমাতেও কাজ করেছেন।

সম্প্রতি 'দিদি নাম্বার ওয়ান' সঞ্চালনার পাশাপাশি শাড়ির কালেকশন নিয়ে রচনা’স ক্রিয়েশনের যাত্রা শুরু করেছেন তিনি। গড়ে তুলেছেন নিজস্ব কাপডের ব্যবসা। প্রতিনিয়ত পজিটিভিটির কথাই বলেন তিনি। আসলে রচনা নিজেই ভীষণ পজিটিভ মানুষ। কোনো ধরনের নেগেটিভি সমালচনা তাকে দমাতে পারেনি তার সিদ্ধান্ত থেকে।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ