বাংলাদেশ-ভারত কোয়ার্টার ফাইনাল শনিবার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:৫৭

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে শনিবার (২৯ জানুয়ারি) ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচের আগে প্রস্তুতির জন্য হাতে বেশ সময় পেয়েছে যুবারা। কন্ডিশনের সঙ্গেও মানিয়ে নিয়েছে রাকিবুলরা। সবার মাঝে বোঝাপড়া ভালো হওয়ায় জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা।

২০২০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় বিশ্বকাপ শুরুর আগে শিরোপা জিতবে বাংলাদেশ। এমন স্বপ্ন ছিল না ক্রিকেটপ্রেমীদের। ফেবারিটের তকমা না থাকলেও সবাইকে চমকে দেয় আকবর আলীরা। 

দেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় সাফল্য যুবাদের হাত ধরেই এসেছে। একঝাঁক নবীনের জয়গানে সেদিন কেঁপে উঠেছিল দক্ষিণ আফ্রিকার আকাশ-বাতাস। সে গর্জনে মেতে উঠেছিল দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরাও। যুবাদের নিয়ে তাই সবার স্বপ্নটাও এবার পাহাড়সমান।

দক্ষিণ আফ্রিকার সাফল্য ওয়েস্ট ইন্ডিজে ফেরাতে চায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। তবে করোনার কারণে এবার সেরা প্রস্তুতি নিয়ে যেতে পারেনি রাকিবুল হাসানরা। শুরুটাও ভালো হয়নি তাদের। ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কাছে দাঁড়াতেই পারেনি প্রান্তিক নওরোজরা। 

তবে গ্রুপের পরের দুই ম্যাচে কানাডা ও আরব আমিরাতকে হারিয়ে এখন কোয়ার্টার ফাইনালে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ সেই আগের আসরে যাদের হারিয়ে শিরোপা এসেছিল ঘরে সেই ভারত।

কোয়ার্টার ফাইনালের আগে প্রস্তুতির জন্য হাতে কিছুটা সময় পেয়েছে বাংলাদেশ দল। কন্ডিশনের সঙ্গেও মানিয়ে নিয়েছে তারা। ভারতের সঙ্গে খেলার অভিজ্ঞতা আগে থেকেই আছে। প্রতিপক্ষ নিয়ে তাই চিন্তিত নয় বাংলাদেশ। ম্যাচ বাই ম্যাচ ভালো করাটাই মূল লক্ষ্য। ম্যাচের আগে নিজেদের মধ্যে প্রস্তুতি ম্যাচও খেলেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

এর আগে এক জয় আর এক হারের পর শিরোপার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচে জয়ের বিকল্প ছিল না বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দলের। সবশেষ ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে বৃষ্টি আইনে ৯ উইকেটে হারিয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নেয় টাইগার যুবারা।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) শুরুতে ব্যাট করে ১৪৮ রানেই গুটিয়ে যায় সংযুক্ত আরব আমিরাত। জিততে হলে রাকিবুল বাহিনীকে করতে হতো মাত্র ১৪৯ রান। ওয়ানডে ক্রিকেটে এক সহজ লক্ষ্যই বলা চলে।

সহজ টার্গেট তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশের শুরুটাও হয় দুর্দান্ত। দুই ওপেনার মাহফিজুল হক ও ইফতেখার ইসলামের ওপেনিং পার্টনারশিপে আসে ৮৬ রান। অবশ্য এরপরই ৭০ বলে ব্যক্তিগত ৩৭ রানের মাথায় আউট হন ইফতি। 

আর এরপরই বৃষ্টির কারণে বন্ধ থাকে খেলা। শেষমেশ মাঠে আর বল গড়ায়নি। আর তাই বৃষ্টি আইনে ৯ উইকেটের জয় তুলে নিয়েছে লাল-সবুজ বাহিনী।

এবিএন/মমিন/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ