জুলাইয়ে ২৯৫ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার 

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০১ আগস্ট ২০২২, ২১:৩৯

জুলাইয়ে নির্যাতনের শিকার ২৯৫ জন নারী ও কন্যাশিশুএ বছরের জুলাই মাসে মোট ২৯৫ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এর মধ্যে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৪৮ শিশুসহ ৭৩ নারী। 

আজ সোমবার মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানায় সংগঠনটি। 

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, জুলাইয়ে এক কন্যাশিশু ও দুজন নারীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। আর ধর্ষণের শিকার আরেক কন্যাশিশু আত্মহত্যা করেছে। এ ছাড়া নয় কন্যাশিশুসহ ১৩ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। 

মহিলা পরিষদের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জুলাইয়ে ১১ জন যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে, যার মধ্যে শিশু রয়েছে আটটি। উত্ত্যক্তের শিকার নয়জনের মধ্যেও শিশুর সংখ্যা ৮। নারী ও কন্যাশিশু পাচারের ঘটনা ঘটেছে ছয়টি। এর মধ্যে চারটি ক্ষেত্রেই ভুক্তভোগী শিশু। এ ছাড়া একজন অ্যাসিডদগ্ধ ও তিনজন অগ্নিদগ্ধের শিকার হয়েছে। 

মহিলা পরিষদ জানায়, যৌতুকের কারণে জুলাইয়ে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন ১৬ জন। এর মধ্যে পাঁচজনকে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন মোট ১৮ জন, যার মধ্যে সাতজনই শিশু। আর পারিবারিক সহিংসতা শিকার হয়েছে ছয়জন। গৃহকর্মী নির্যাতনের শিকার হয়েছে দুজন, যার মধ্যে একজনকে হত্যা করা হয়েছে। 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বিভিন্ন কারণে নয় কন্যাশিশুসহ ৪২ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া এক কন্যাশিশুসহ দুজনকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। আট কন্যাশিশুসহ ২৭ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। আর ছয় কন্যাশিশুসহ ১৭ জন আত্মহত্যা করেছে। এর মধ্যে দুই শিশুসহ মোট চারজনের আত্মহত্যায় প্ররোচনার হদিস মিলেছে। অপহরণের শিকার হয়েছে আট শিশুসহ মোট নয়জন। এ ছাড়া এক কন্যাশিশুকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। ফতোয়ার শিকার হয়েছেন চারজন। আর চার কন্যাশিশুসহ সাইবার অপরাধের শিকার হয়েছে ছয়জন। 

এতে আরও জানানো হয়, বাল্যবিবাহের ঘটনা ঘটেছে ১০ টি। আর বাল্যবিবাহের ঘটনা প্রতিরোধ করা হয়েছে নয়টি। এ ছাড়া তিন কন্যাশিশুসহ আটজন বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছে। 

এবিএন/আব্দুর রাজ্জাক/জসিম/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ